সংখ্যালঘুকে আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে ধরে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ!

এদেশে আওয়ামী লীগ করার পরও রক্ষা পাচ্ছিনা!
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে এক সংখ্যা লঘুকে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ধরে নিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের স্বীকার হাসাড়া ইউনিয়নের আলমপুর গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের দুলাল ব্যানার্জী (৪৮) আক্ষেপ করে বলেন বংশের সবাই আওয়ামী লীগ করেও সংখ্যালঘু বলে মারধর থেকে রক্ষা পাচ্ছি না। মার খেয়ে বিচার চাওয়াতো দুরের কথা উল্টো স্ত্রী-সন্তান নিয়ে এখন প্রাণ ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।

দুলাল ব্যানার্জী অভিযোগ করে বলেন, তাকে গত সোমবার সন্ধ্যায় হাসাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্প্রতি ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আহসান হাবীব এক চৌকিদারের মাধ্যমে আলমপুর বাজারে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ডেকে নেয়। সেখানে আহসান হাবীব অভিযোগ তুলেন দুলাল ব্যানার্জী নির্বাচনে তার প্রতিপক্ষ প্রার্থীর হয়ে টাকা বিলি করেছেন।

এক পর্যায়ে আহসান হাবীবের নির্দেশে তার লোকজন দুলাল ব্যানার্জীকে এলোপাথারী মারধর শুরু করে এবং টেনে হিচড়ে জামা কাপড় ছিড়ে ফেলে। পরে এবিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে দুলাল ব্যানার্জীকে পুনরায় দেখে নেওয়া হবে বলে হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। এঘটনার পর পরই আওয়ামী লীগ কর্মী দুলাল ব্যানার্জী বিষয়টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও জয়ী চেয়ারম্যান সোলেমান খানকে জানান। দুলাল ব্যানার্জী দুঃখ করে বলেন, আমরা বংশ পরম্পরায় আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছি।

বর্তমানে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় অথচ সংখ্যা লঘু হিসাবে আওয়ামী লীগের হাইব্রিড নেতাদের কাছে মার খেতে হচ্ছে। এর চেয়ে কষ্টের আর কি হতে পারে। ওই ইউনিয়নে জয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী সোলেমান খাঁন বলেন, বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয় সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষকে জানানো হয়েছে। তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বাষ দিয়েছেন।

এব্যাপারে আহসান হাবীবের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি দুলাল ব্যানার্জীকে ডেকে নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন দুলাল ব্যানার্জী নির্বাচনে টাকা বিলি করায় একটু ধাক্কাধাক্কি হয়েছে। তাকে মারধর করা হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.