পাঠক সংখ্যা

  • 7,309 জন

বিভাগ অনুযায়ী…

পুরনো খবর…

অনলাইনে ভর্তির আবেদনে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের বানিজ্য!

মুন্সীগঞ্জে একাদশ শ্রেনীতে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে আসা সাধারন ছাত্র ছাত্রীদের জিম্মি করে কলেজ শাখার ছাত্রলীগের একাংশ বানিজ্য করার চেষ্টা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সকাল ৯টা থেকে বিভিন্ন্ স্কুলের ছাত্র- ছাত্রীরা অনলাইনে ভর্তির আবেদন করে একাদশ শ্রেনীতে ভর্তির জন্য। বিভিন্ন্ দোকানে উপচে পড়া ভির জমায়। হঠাৎ কলেজ শাখা ছাত্রলীগের একাংশের নেতা শ্যামল, রিফাত, রাব্বি, নিলয়সহ প্রায় ১০-১২ জনের একটি সর্ংঘবদ্ধ দল বিভিন্ন দোকানে লাঠি সোটা নিয়ে দোকানদারদের হুমকি প্রদান করেন। রাবিব হাতের লাঠির ভয় দেখিয়ে জোর পূর্বক স্টিডিয়াম সার্কেটের সব কম্পিউটার দোকান বন্ধ করে দেয়।

এতে করে দুপুর ১২ পর্যন্ত প্রায় ৩ ঘন্টা অনলাইনে কলেজে ভর্তির আবেদন কায়ক্রম বন্ধ থাকে। এতে করে ভর্তি হতে আসা ছাত্র- ছাত্রীরা ও স্বজনরা নানা বিপাকে পড়েন। দোকানগুলোর ভিতরে ও বাহিরে শত শত ভর্তির জন্য আসা ছাত্র- ছাত্রীদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। রাবিব সব দোকানদারদের হুমকি প্রদান করে বলেন, আমি একা আবেদন গ্রহন করিব। এটা কলেজের ব্যাপার আমি কলেজে আবেদনের জন্য আলাদা কম্পিউটার বসিয়েছি। সব ছাত্র- ছাত্রী আমার কাছে আবেদন পত্র জমা দিবে। কোন দোকানে অনলাইনের আবেদন নিলে তার খবর আছে।

এ হুমকি শোনার পর সব দোকানদারা আবেদন ফরম পূরন করা বন্ধ রাখে। পরে রাব্বি কলেজ গেটের সামনে টেবিল বসিয়ে প্রতি আবেদন ফরম থেকে ২০০-৩০০ টাকা নিয়েছে একাদশ শ্রেনীতে আবেদকারী ছাত্র- ছাত্রীদের কাছ থেকে।

নাম প্রকাশে অচিচ্ছুক একাধিক আবেদনকারী ছাত্রী- ছাত্রী জানান, সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি আবেদন করতে পারছিনা। কলেজ শাখা ছাত্র- লীগের নেতা রিফাত, রাব্বি,শ্যামল এসে সব দোকান বন্ধ করে দেয়।

অনলাইনে আবেদনকারী সাবিনা জানান, রাব্বি ও তার লোকেরা কলেজ গেটের সামনে বাহিরে টেবিল দিয়ে বসে আবেদন ফরম ফিলাপ করেন। আমি ২৫০ টাকা দিয়ে আবেদন করেছি একাদশ শ্রেনীতে।

ছাত্রলীগের জেলা শাখা, শহরশাখা এবং কলেজ শাখার ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, আমরা এ ধরনের অন্যায় কাজে যারা জরিত আমরা তাদেরকে প্রশ্রয় দিবনা। ছাত্রলীগ সব সময় অন্যায়ের বিপক্ষে। যারা এসব অপকর্মের সাথে জড়িত তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে আমরা আমাদের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা করিব।

এ ব্যাপারে রিফাতের সোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।

সরকারী হরগঙ্গা কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল শাহেদুল কবির এর সাথে ফোনালাপকালে তিনি বলেন, এ বিষয়টি আমার নলেজে নেই। আমার কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেনি।

Leave a Reply

You can use these HTML tags

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

  

  

  

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.