শিবা: শাকিবের নায়িকার পিঙ্ক জামার ঈদ

বাংলাদেশের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন মুখ তিনি। তাই বলে যে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা একেবারেই নেই, তা মোটেও নয়। সে কথা পরেই বলা যাক। আপাতত চিনে নিন শিবা আলী খানকে। এই মুহূর্তে ঈদের খোশমেজাজে থাকলেও ব্যস্ততা রয়েছে ‘অপারেশন অগ্নিপথ’ নিয়ে। এ মুভিতে শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন শিবা।

সিনেমা জগতের প্রেমে পড়েন আগেই। উচ্ছ্বসিত কণ্ঠে বললেন, ‘সেই ২০১০ সালে র‍্যাম্প দিয়ে শুরু আমার। দেখতে দেখতে তিন বছর মডেলিংয়ে সময় কাটিয়ে দিয়েছি। আরো বড় কিছু করার স্বপ্ন ছিল। কীভাবে যেন একটা সিনেমাও করে ফেললাম। হরর ঘরানার ‘দ্য স্টোরি অব সামারা’য় অভিনয় করে ফেললাম। তবে ওটা একটি এক্সপেরিমেন্টাল ছবি বলতে পারেন। ‘

সেই এক্সপেরিমেন্টে উৎরে গেছেন সামারা। বিভিন্ন মহল থেকে প্রশংসা পেয়েছেন। নইলে কি আর দ্বিতীয় ছবিতেই ঢালিউডের কিং খানের সঙ্গে সুযোগ মেলে? এ কারণে দারুণ উত্তেজিত শিবা। ‘আসলে আমি আগে সাইন করেছি ছবিতে। পরে যখন জানলাম শাকিব ভাই এতে আছেন, আমি তো অবাক! তার সাথে ছবি করা একটা বড় সুযোগ। তার লক্ষ-কোটি ভক্তরা আমাকেও দেখবেন। তাদের মনে জায়গা করে নিতে চাই। ‘

কাজের কথা একটু কমই বলা যাক, ঈদে কী কী করলেন বলেন তো? হেসে ফেললেন অভিনেত্রী। ‘মুন্সিগঞ্জ চলে এসেছি। অনেক মজা করছি। বাড়ি থেকে আরো দূরে দাদার বাড়িও ঘুরে এসেছি। আগামী মাসে ছোট বোনের জন্মদিন। মনে হচ্ছে এখন থেকেই তা উদযাপন শুরু করে দেই। ভাই-বোনরা আসছে, বেশ কয়েকজন আত্মীয় এসেছেন দেশের বাইরে থেকে। ঈদ এবার মনে হচ্ছে আমারই। ‘

‘বেশ কয়েকটা জামা কিনেছি আবার পেয়েছিও। কিন্তু সবগুলো অনেক ভারি ভারি। পিঙ্ক কালারের একটাই পরেছি ঈদে। ‘ আর সালামি? ‘হ্যাঁ, অনেক সালামি পেয়েছি। কিন্তু এখন বড় হয়ে গেছি তো, তাই আর আগের মতো বেশি পাই না। উল্টো সালামি দিতে হয়। ‘

অভিনয় বিষয়ে ভিন্ন আবেগ কাজ করে শিবার মনে। তিনি খুবই সিরিয়াস। ‘পড়াশোনার পরের ধাপটা ফিল্ম বিষয় নিয়েই সম্পন্ন করতে চাই’, এ বক্তব্যই তা স্পষ্ট করে। পেশাদার মনোভাব নিজের মধ্যে গেঁথে ফেলার চেষ্টা করছেন। কারণ যেকোনো কাজে ভালো করতে হলে পেশাদার হতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।

র‍্যাম্পে সামান্য বিরতির পর ২০১০ সাল থেকে টিভি নাটকে অভিনয় শুরু করেন। একক বা ধারাবাহিক মিলিয়ে বেশ কয়েকটি নাটক রয়েছে তার ঝুলিতে। এর মধ্যে ‘রাজকুমার’, ‘বেঁচে থাক ভালোবাসা’, ‘স্বপ্নের প্রজাপতি’র কথা বলতেই হয়।

নতুন ছবির ব্যস্ততা কবে থেকে? ‘আরে মুন্সিগঞ্জেই থাকব আরো ১০ দিন। তারপর শুটিংয়ের দিনক্ষণ জানব। আশা করা যায়, আগামী সেপ্টেম্বরেই ছবির কাজ শেষ হবে। থাইল্যান্ডে দুটো গানের শুটিং করতে হবে। ওই সময় শাকিব ভাইয়ের সঙ্গে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দৃশ্যায়ন রয়েছে আমার। ভালো করব আশা করি। ‘

কালের কণ্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.