রনছ এলাকায় সন্ত্রসাী হামলার শিকার ৩ সহোদরসহ ৪

পূর্ব বিরোধের জেরে মুন্সিগঞ্জ সদরের রনছ এলাকায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন ৩ সহোদরসহ ৪ জন। গুরুতর আহত অবস্থায় হানিফ শেখ ও দেলোয়ার হোসেনকে মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং বাকি দু’জনকে হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সোমবার সকালে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

বুধবার মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় এ ব্যাপারে মামলা রুজু হয়। আসামীদের কাউকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি। বরং আসামীরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য নানাভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে যাচ্ছে হামলার শিকার পরিবারকে।

আহত মনির শেখ বলেন, রনছ পারুলপাড়া গ্রামের রনি (২৮) নেতৃত্বে ৭-৮ জন লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অদূরে বৈখর ব্রিজের সামনে আমার ভাই রবিউলের ওপর হামলা চালায়। তার চিৎকারে আমি বড় ভাই রবিউল শেখ ও তার কর্মচারী দেলোয়ার এগিয়ে এলে আমরাও হামলায় আহত হই।

পরে আশপাশের আরো লোকজন এলে ওরা পালিয়ে যায়। এরই মধ্যে ওরা আমাদের রাড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে জানালার কাঁচ ভাংচুর করে ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যের হুমকি ধমকি দিয়ে যায়।

আহতাবস্থায় আশপাশের লোকজন আমাদের হাসপাতালে নিয়ে আসে। দেলোয়ারের সঙ্গে রনির ঝগড়ার জেরে এ হামলার সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেলোয়ার আমাদের বাড়ির পাশে আমার বড় ভাই রবিউল শেখের ছোট একটি পোশাক কারখানার কর্মচারী।

এ ব্যাপারে আমি মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় মামলা করি। আসামীরা হচ্ছে রনি, সোহেল, মো. আলী, মো. আলমগীর, আবু ছালাম ও অজ্ঞাত আরো ২-৩ জন।
তিনি আরো জানান, ৫ দিন যাবৎ বড় ভাই হানিফ শেখ ও কর্মচারী দেলোয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভর্তি আছেন। এদিকে হামলাকারীরা আমাদের পরিবারের সদস্যদের নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে, মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি ধমকি দিচ্ছে।

মুন্সিগঞ্জ নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.