টিভির নাটকের আলোচিত প্রযোজক মুন্সীগঞ্জের বিরহী মোক্তার

জসীম উদ্দীন দেওয়ান : খুব অল্প সময়ে টেলিভিশনের জগতে নিজেকে সুপরিচিত করে তোলতে সক্ষম হয়েছে বিরহী মোক্তার। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্জসার ইউনিয়নের ডিঙ্গাভাঙ্গা গ্রামের সন্তান বিরহী মোক্তার বড় ভাই গীতিকার ও কন্ঠ শিল্পী প্রায়াত আবুল কালাম আজাদকে অনুসরণ করে সংস্কৃতির জগতে পা বাড়ান।

এরই আলোকে ২০১৩ সালের শেষ দিকে নিজেই বিরহী মাল্টি মিডিয়া নামে একটি প্রযোজনা সংস্থা করে সেই সংস্থা থেকে কলা পাতার ঘর নাটকটি প্রযোজনা করেন। যে নাটকটি প্রচারিত হয় মাছরাঙ্গা টেলিভিশনে এবং বিরহীর প্রথম নাকটিই দর্শকদের মনে দাগ কাঁটে। তার পর তাঁকে আর ফিরে তাকাতে হয়নি। একর পর এক প্রযোজনা করে যাচ্ছেন, নাকট ও টেলিফিল্ম। যেগুলো প্রচার হবার পর নাটক পাড়ায় ফেলেছে ব্যাপক সাড়া। কথার খাতিরে বলতে হয় তার প্রযোজিত টেলিফিল্ম আর্টিশ মজনু খাঁ মাছ রাঙ্গা টেলিভিশনে প্রচারিত ২০১৬ সালের বর্ষ সেরা টেলিফিল্ম নির্বাচিত হয়।

এছাড়া চলতি বছর ইদুল আযহায় বিরহীর প্রয়োজিত টেলিফিল্ম গল্পটা তোমার-ই এন টিভিতে প্রচার হবার পর দর্শকদের মাঝে খুব বেশি সাড়া পরে। যার গুঞ্জন মিডিয়া জগতে এখনো বয়ে বেড়াচ্ছে। মোক্তারের বিভিন্ন নাটকের জনপ্রিয়তায় ঢাকার নাট্য জগতে অনেকটা আলোচিত প্রযোজক হিসেবে সুপরিচিত পেয়েছে মুন্সীগঞ্জের এই যুবক। স্বল্প সময়ে জনপ্রিয় হবার পিছনে বিরহী মোক্তারের দৃঢ়তা ও কয়েকজন পরিচালকের বিশেষ সহযোগিতার কথা তুলে ধরেন। যাদের মধ্যে জনপ্রিয় পরিচালক সকাল আহাম্মেদ ও মো: মেহেদি হাসান জনির কথা বিশেষ কৃতজ্ঞতার সাথে স্বরণ করেন।

বিরহী মোক্তার প্রযোজনার পাশাপাশি অভিনয়েও প্রচুর সময় দিয়ে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে তিনি ৪০ টিরও বেশি নাটক ও টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন। তাঁর সর্ব শেষ প্রয়োজিত টেলিফিল্ম ফিরবে ভাবিনী শীঘ্রই জনপ্রিয় একটি টেলিভিশনে প্রচারের জন্য চুক্তি প্রায় শেষের দিকে। যেটিতে তিনি নিজে অভিনয় করেছেন একটি পুলিশ কনষ্টেবল চরিত্রে। আর এই টেলিফিল্মেও মূল চরিত্রে নায়িকা মমর বিপরীতে অভিনয় করেছেন, নাট্য জগতের ক্রেজ অপূর্ব ও নাঈম। বিরহীর এই টেলিফিল্মটিও দর্শক নন্দিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নাট্য জগতের বাইরেও সঙ্গিত জগতে অবদান রেখে যাচ্ছেন বিরহী মোক্তার। ঢাকা শিল্প কলা ভবনে, বাংলাদেশ নাট্যাঙ্গন থিয়েটারের সঙ্গিতের শিক্ষক হিসেবে বর্তমানে দায়িত্ব পালন করে আসছেন বিরহী মোক্তার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.