বিনম্র শ্রদ্ধ্বায় জাতি স্মরণ করলো ১১ মার্চ এর সুনামি

হাসিনা বেগম রেখা: জাপানে বিনম্র শ্রদ্ধা, গভীর ভালোবাসা এবং আত্মার শান্তি কামনা করে প্রার্থনায় স্মরণ করা হয়েছে হারানো স্বজনদের। এদিন ১ মিনিটের জন্য থমকে গিয়েছিল পুরো জাপান / ২০১১ সালের ১১ মার্চ স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ ভূমিকম্প এবং এর ফলে সৃষ্ট সুনামির আঘাতে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে নিখোঁজ এবং নিহতদের এভাবেই স্মরণ করেছে জাপান /

২০১১ সালের ১১ মার্চের এই দিনে ভয়াবহ ভুমিকম্পের পর প্রশান্ত মহাসাগরে আঘাত হানা প্রচণ্ড ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে জাপান। ভূমিকম্পের প্রভাবে সৃষ্টি হয় সুনামির। প্রলয়ংকরী সুনামির তোড়ে ভেসে যায় বহু প্রাণ, ঘরবাড়ি, স্থাপনা। মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ফুকুশিমা পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। ১৫,৮৯৫ জন হাজার মানুষ নিহত এবং ২,৫৩৯ জন নিখোঁজ হন এদিনে । দিনটিকে স্মরণ করছেন জাপানিরা। এক্ষণ ৭৩,০০০ জন গৃহহারাভাবে দিন কাটাচ্ছেন / এদের মধ্যে ২০,০০০ জন নিকটাত্মীয় দের কাছে এবং ৫৩,০০০ জন সরকারী আশ্রয় কেন্দ্রে দিনাতিপাত করছেন /

এবছর ১১ মার্চ রোববার হওয়ায় নীরবে প্রার্থনা জানাতে পেরেছেন অনেকেই / স্বজনদের স্মরনে কেহবা সমুদ্রপাড়ে ফুলেল শ্রদ্ধ্বা জানিয়েছেন / কর্মক্ষেত্রেও একমিনিটের জন্য কাজ বন্ধ রেখে নিহত এবং নিখোঁজদের প্রতি শ্রদ্ধ্বা জানানো হয় /

বেলা ২টা ৪৬মিনিটের সময় গনপরিবহন থামিয়ে পূর্ব জাপান ভয়াবহ ভুমিকম্প , এর ফলে সুনামি এবং পরবর্তী বিপর্যয়ে নিহত , নিখোঁজ এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সন্মান ও সমবেদনা জানানো হয় /

ভূমিকম্প এবং সুনামিতে সৃষ্ট প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে নিহত, নিখোঁজ এবং ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি শ্রদ্ধা, স্মরণ এবং সমবেদনা জানাতে রাজধানীর টোকিওতে রোববার (১১ মার্চ) সরকারি উদ্যোগে এক স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। বিশেষ এই স্মরণ সভায় (জাতীয় থিয়েটার ভবন, টোকিও) জাপানের রাজপরিবার সদস্য প্রিন্স আকিশিনো, প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে, মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দী স্থানীয় সরকারের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, কূটনৈতিক ডিনের ব্যক্তিবর্গ, পেশাজীবী ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত তিনটি প্রিফেকচারের (মিয়াগি, ফুকুশিমা ও ইওয়াতে) প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.