সিরাজদীখান ধুলায় হাঁপানিসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার বিভিন্ন সড়কে চলাচলরত হাজার হাজার মানুষ বর্তমানে শ্বাসকষ্ট, ফুসফুসের ক্যান্সার, হাঁপানি, যক্ষ্ণাসহ নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে ধুলা বাড়ায় ঘর থেকে সড়কে নামলেই ধুলাবালির কবলে পড়ছে মানুষ। এ থেকে রক্ষা পেতে খুব কমসংখ্যক মানুষই মাস্ক ব্যবহার করেন। বেশিরভাগ মানুষই অসচেতনতার কারণে ধুলাবালির সঙ্গে যুদ্ধ করেই জীবনযাপন করে যাচ্ছে। ফলে হাঁপানিসহ শ্বাসতন্ত্রের নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। চিকিৎসকদের মতে, শ্বাসনালি দিয়ে এসব ধুলাবালি প্রবেশের কারণে ফুসফুস ক্যান্সারের মতো জটিল রোগও হতে পারে মানুষের।

সরেজমিন দেখা গেছে, উপজেলার বালুচর, লতব্দী, বাসাইল কেয়াইন, চিত্রকোট, রশুনয়া, বয়রাগাদী ও শেখরনগর ইউনিয়নে ধুলায় অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। পাশাপাশি স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা-মসজিদ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, চায়ের দোকান, মুদিদোকান, খাবারের দোকান, সরকারি-বেসরকারি ক্লিনিক, ব্যাংক-বীমাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও ধুলাবালিতে ঢাকা পড়ে যাচ্ছে।

বিক্রমপুর কে বি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সামছুল হক হাওলাদার বলেন, ‘নাক চেপেও রেহাই পাওয়া যায় না, সব সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হয়।’

বালুচর বাজারের মুদি দোকানদার আক্তার হোসেন বলেন, গাড়ি থামার সঙ্গে সঙ্গে ধুলায় রাস্তা ভরে যায়। মিনিটের মধ্যে দোকানসহ আমি সাদা হয়ে যাই। এসব নিয়ন্ত্রণ করা বা দেখার যেন কেউ নেই। যত দুর্ভোগ সব জনগণের।

স্থানীয়দের অভিযোগ, উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের বেশিরভাগ ফসলি জমির মাটি কেটে এবং বালু দিয়ে বিভিন্ন ডোবা ও নিচু জমি ভরাটের কাজ করা হচ্ছে। এসব বহনে ব্যবহার করা প্রায় সাত শতাধিক অবৈধ মাহেন্দ্র। এগুলোর কারণে ধুলাবালি বাতাসে ওড়ে। এ ছাড়া সড়ক সংস্কারে খোঁড়াখুঁড়ির কাজ চলমান থাকায় ধুলাবালি বেড়েছে।

সমকাল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.