মিরপুরের মাদকসম্রাট নজু সর্দার ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

রাজধানীর মিরপুরের রূপনগর এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা সম্রাট নজরুল ইসলাম ওরফে নজু সর্দার (৪২) গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে ।

সোমবার ভোররাতে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পশ্চিম বিভাগের ৩টি টিম যৌথভাবে ওই অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে রাতের অন্ধকারে রূপনগর থানাধীন মিরপুর-৬ এর ট ব্লকে গণপূর্ত উপ- স্টাফ কোয়ার্টারে (কাঠের কারখানা) বন্দুকযুদ্ধে একজন গুলিবিদ্ধ হয়। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক একজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরে গোয়েন্দাদের কাছে থাকা শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীদের ছবি মিলিয়ে দেখে প্রাথমিকভাবে তারা নিশ্চিত হয়েছেন নিহত ব্যক্তি নজু সর্দার। স্থানীয়রাও বলছে, নিহত ব্যক্তি রূপনগরের চলন্তিকা বস্তির শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম নজু।

ডিএমপির মিডিয়া বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. মাসুদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ১টি ৭.৬৫ এমএম পিস্তল, ২টি রাউন্ড গুলি, ১টি ম্যাগাজিন, ৩টি গুলির খোসা ও ১টি পলিথিন ব্যাগে মোড়ানো ৫ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়েছে।

রাজধানীর অন্যতম শীর্ষ মাদক বিক্রেতা নজু সর্দার। নিহত নজু সর্দারের বিরুদ্ধে মিরপুর, পল্লবী ও রূপনগর থানায় ২২টি মাদক মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে পলাতক অজ্ঞাত কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে আসামি করে ১টি হত্যা, ১টি অস্ত্র ও অপর একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদেরকে গ্রেপ্তারেও পুলিশের অভিযান চলবে বলে জানানো হয়।

নজুর বাড়ি মুন্সীগঞ্জের কেওরা এলাকায়। মাদক ব্যবসা করে সেখানেও বিলাসবহুল বাড়ি তৈরি করেছিল সে। নজুর দুই ভাই তোফা কাজী ওরফে তোফা সর্দার ও বাবুল কাজী ওরফে বাবুল সর্দারও মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। নজুর পাঁচ বোনও মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, নজুর স্ত্রী হাজেরা বেগম, মা সুফিয়া বেগম, শাশুড়ি ফেলানী এবং পাঁচ বোনের মধ্যে দুই বোন শান্তি ও লীলা মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। নজুর নেতৃত্বে তারা সবাই চলন্তিকা বস্তিতে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছিল।

পূর্ব পশ্চিম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.