মুল সাইটে যাওয়ার জন্য ক্লিক করুন

পাঠক সংখ্যা

  • 9,801 জন

বিভাগ অনুযায়ী…

পুরনো খবর…

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি , জাপান’র প্রথম অভিষেক ২০১৯ অনুষ্ঠিত

রাহমান মনি: উৎসাহ উদ্দীপনা আড়ম্বর পরিবেশে জাপানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান’র প্রথম অভিষেক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে । ৩০ জুন রোববার টোকিওর তাকিনোগাওয়া বুনকা সেন্টার এ আয়োজিত আনন্দঘন এবং উৎসব মুখর পরিবেশে অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা। প্রসঙ্গত রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার-ই কৃতি সন্তান। উল্লেখ্য প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ারর-ই সন্তান ছিলেন।

তুহিন বিনতে মান্নান চৌধুরী ময়নার উপস্থাপনায় অভিষেক অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধান অতিথিকে ফুলেল অভ্যর্থনা জানানো হয়। এরপর কোরআন তেলোয়াত এর মাধ্যমে অভিষেক অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়।

এরপর লিপিকা চৌধুরী জুঁই কে সভাপতি, আবু সুফিয়ান জুয়েল কে সাধারন সম্পাদক এবং শরিফ আহমেদ খান কে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী পর্ষদ সদস্যদের নাম ঘোষণা করেন উপস্থাপিকা তুহিন বিনতে মান্নান চৌধুরী ময়না। এছাড়া পর্ষদে চারজন কে উপদেষ্টা হিসেবে রাখা হয় ।

এরপর সাখাওয়াত হোসেন এর কণ্ঠে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিচিতির উপর একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয় গোলাম মাসুম জিকোর কারিগরি সহযোগিতায়।

সংগঠনের গঠনতন্ত্র , আদর্শ ও উদ্দেশ্য নিয়ে বিস্তারিত বর্ণনা করে বক্তব্য রাখেন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফ আহমেদ খান ।

অতিথিদের স্বাগত ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাধারন সম্পাদক আবু সুফিয়ান জুয়েল ও সভাপতি লিপিকা চৌধুরী জুঁই ।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে তারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান কে নামে একটি আঞ্চলিক সংগঠন হলেও বাংলাদেশের স্বার্থে কাজ করার সংকল্প ব্যক্ত করে বলেন, জাপানে প্রবাসীদের জন্য কাজ করার পাশাপাশি নিজ দেশেও গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, প্রাকৃতিক দুর্যোগে সহযোগিতার হাত বাড়ানো, দুঃস্থদের পার্শ্বে দাঁড়ানো, বাল্য বিবাহ রোধে সচেতনতা সৃষ্টি করা সহ বিভিন্ন উন্নয়ন ও গঠনমূলক কাজে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান কাজ করে যাবে। এ ব্যাপারে তাঁরা সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।

প্রধান অতিথির শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা বলেন , বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলা-ই আমার দেশ। তারপরও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রয়েছে আমার নাড়ির টান। আমার দাদা বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়। এখানে রয়েছে আমার অনেক স্মৃতি। আজ যদি আমার দাদা এবং বাবা বেঁচে থাকতেন এবং জানতেন আমি এখানে এসেছি তাহলে তারা অনেক খুশী হ’তেন নিশ্চয়।

আজ আমার কাছে সবচেয়ে ভালো লাগছে এই ভেবে যে, জাপানে এই প্রথম কোন আঞ্চলিক সংগঠনের সভাপতির পদে একজন নারী অধিষ্ঠিত এবং আজ আমি অনেক নারীদের উপস্থিতি দেখতে পাচ্ছি যা সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান এর পক্ষ থেকে তাঁদের কৃতি সন্তান রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমাকে সন্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করে হয়। সংগঠনের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক অন্যান্যদের উপস্থিতিতে তাঁর হাতে এ ক্রেস্ট তুলে দেন।

এরপর প্রবাসীদের দ্বারা পরিচালিত বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয় ।

অনেকদিন পর প্রবাসীরা একটি সুন্দর , গুছালো , আনন্দঘন প্রাণবন্ত অনুষ্ঠান উপভোগ করেছে যার কৃতিত্বের দাবীদার সংগঠনের প্রতিটি সদস্য’র আন্তরিকতা ও টিম ওয়ার্ক এবং সাধারন সম্পাদক আবু সুফিয়ান জুয়েল ও সভাপতি লিপিকা চৌধুরী জুঁই এর নেতৃত্ব।

অভিষেক অনুষ্ঠানটি আরও প্রাণবন্ত করে তুলে ‘ঝি ঝি পোকার’কনসার্ট । আত্ম প্রকাশ করার পর টোকিওতে এই প্রথম কনসার্ট করলো ঝি ঝি পোকা। প্রথম কনসার্টেই তাদের অবস্থানের কথা জানান দিয়েছে। সঠিক সিলেকশন এবং পরিবেশনা যে সব বয়সের শ্রোতাদের মাতিয়ে রাখা যায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঝি ঝি পোকা তা প্রমান করেছে। প্রমান রেখেছে বাংলা গানের সমৃদ্ধি ও ভান্ডারের কথা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান’র অভিষেক এর বিশেষ প্রাপ্তি ছিল জাপান আওয়ামীলীগ সভাপতি সালেহ মোঃ আরিফ এর সহধর্মিণী নারমিন হক এর জন্ম দিন। এদিন নারমিন হক এর জন্মদিন হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সোসাইটি, জাপান’র পক্ষ বিশেষ আয়োজন রাখা হয়। তার ই অংশ হিসেবে শিশুদের নিয়ে কেক কাটা। আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে কেক কেটে একে অন্য কে কেক খাওয়ানো উপভোগ্য ছিল ।

Leave a Reply

You can use these HTML tags

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

  

  

  

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.