বড় ছেলে খুঁজছে বাবাকে, মেঝ ছেলে মুন্সিগঞ্জে উৎকণ্ঠায়, ছোট ছেলে লাশ

রিয়াদ হোসাইন: লঞ্চ ডুবিতে নিহত মুন্সিগঞ্জের আব্দুর রহমানের স্ত্রী, ছোট ছেলের লাশ খুঁজে পাওয়া গেলেও তার মরদেহ এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি। মা ও ছোট ভাইয়ের লাশ নিয়ে গত সোমবার অপেক্ষায় ছিলেন বাবা আব্দুর রহমানের (৪৮) লাশ পাওয়ার আশায় দুই ভাই হাসিফ রহমান (২০) ও রিফাত রহমান (১৫)। কিন্তু লাশ উদ্ধার না হওয়ায় নিহত মা হাসিনা বেগম(৩৫) ও ছোট ভাই সিফাত (৯) এর লাশ নিয়ে বাড়ি ফিরেন তারা। রাতে মা ও ছোট ভাইকে টঙ্গিবাড়ী উপজেলার আব্দুল্লাহপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

পরে গত মঙ্গলবার ভোরে বাবাকে খুঁজতে বের হয় হাসিফ রহমান। ট্রলার নিয়ে বুড়িগঙ্গার বুকে বাবাকে খুঁজছে সে। কমপক্ষে বাবার লাশটি শুধু চাওয়া দুই ভাইয়ের। চরম উৎকণ্ঠা নিয়ে অপেক্ষা করছেন মুন্সিগঞ্জে অপর ভাই রিফাত। বাবার লাশটি এনে মা ও ভাইয়ের কবরের পাশে দাফন করাতে চান তারা। কিন্তু মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নিহত আব্দুর রহমানের কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি।

নিহতের ছেলে রিফাত রহমান বলেন, তার বাবা আব্দুর রহমান ঢাকা জজ কোর্টে কাজ করতেন। তারা পুরাণ ঢাকায় কোসাই টিলা এলাকায় বসবাস করতেন। করোনার কারণে লকডাউনে তার বাবার কাজ বন্ধ হয়ে গেলে তারা কয়েকমাস আগে তাদের দাদার বাড়ি টঙ্গিবাড়ী উপজেলার আবদুল্লাহপুর গ্রামে চলে আসেন।

পরে তাদের ঢাকার ভাড়া বাসার কিছু ভাড়া বাকি থাকায় বাড়ির মালিক তাদের ফর্ণিচার আটকিয়ে রেখেছিলো। গত সোমবার সেই ফার্নিচার আনতে ঢাকা যাচ্ছিলো তার বাবা,মা ও ছোট ভাই। পরে সকাল ৯টার দিকে লঞ্চ ডুবির ঘটনা ঘটলে ওই লঞ্চ থেকে জীবিত সাঁতরে বাঁচা তাদের এক প্রতিবেশী জানায় তার বাবা, মা ও ভাই যে লঞ্চে ছিলো সেই লঞ্চ অপর একটি লঞ্চের সংঘর্ষে ডুবে গেছে। তারপর হতেই বাবা,মা ও ভাইয়ের খোঁজে বেরিয়ে পরেন তারা । পরে মা ও ছোট ভাইয়ের লাশ খুঁজে পেলেও বাবার লাশ খুঁজে পাননি এখনো।

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.