মুন্সীগঞ্জ সরকারী চাল ইউপি চেয়ারম্যানের নামে বিলির চেষ্টা

টঙ্গীবাড়ি উপজেলা ইউপি চেয়ারম্যান প্রধান মন্ত্রীর দেয়া ঈদ উপহার বিজিএফ এর চাউল নিজ নামে বিতরণের চেষ্টা করলে উপজেলা প্রশাসন তা বন্ধ করে দেন। সোমবার সকালে উপজেলার কামারখাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন হালদার নিজ নামের লোগো ব্যবহার করে তা বিতরণের চেষ্টা করেন।

জানা যায়, ইউ চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন হালদার তার নিজ নামে লোগো ববহার করে ফেসবুকে জমি বিক্রি করে ত্রান দিচ্ছেন বলে ঘোষণা দেয়। সোমবার সকালে করোনা প্রার্দুভাবে নিম্ন আয়ের পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ১০ কেজি করে ৫ শত জনের মধ্যে চাউল বিতরণ শুরু করেন নিজের নামে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোসা: হাসিনা আক্তার তা বিতরণ বন্ধ করে দেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, চেয়ারম্যান নিজ নামে চাল বিতরণ করেই ক্ষ্যান্ত হননি ৪৫ জনের ৪৫০ কেজি চাল অন্যত্র সরিয়ে ফেলেন। সরকারী চাউল ইউনিয়ন পরিষদে না রেখে চেয়ারম্যান নিজে কামারখাড়া আ’লীগ অফিসে নামিয়ে তসরুপ করছেন বলে অভিযোগ তাদের।

কামারখাড়া বাজার কমিটির সভাপতি আনিছ হালদার বলেন, দূর্যোগের মধ্যে দুস্থদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেয়া চাল কোথায় গেল?

কামারখাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন হালদার বলেন, আমি বন্যা কবলিত অসহায় মানুষের পাশে থাকি আমার ইউনিয়নের মানুষের ঈদ মোবারক জানিয়ে একটি ষ্টিকার ব্যবহার করেছি মাত্র। ইতিপূর্বে আমি নিজ অর্থায়নে অনেক সহায়তা করেছি।

এ বিষয়ে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা প্রকল্প-বাস্তবায় কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, কামারখাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিজিএফ এর চাল নিজ অর্থায়নে বিতরণ রছেন স্টিকার ব্যবহার করার সংবাদে চাল বিতরণ বন্ধ রাখা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মোসাম্মৎ হাসিনা আক্তার জানান, বিষয়টি জেনে বিতরণ বন্ধ রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার থেকে চাউল বিতরণ করা হবে।

নয়া দিগন্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.