টঙ্গীবাড়ীতে শিক্ষা কর্মকর্তা ঘুস বানিজ্যের বিরুদ্ধে সংবাদ সন্মেলন

মোজাফফর হো‌সেন: মুন্সীগ‌ঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার অঞ্জুমান আরার ঘুস বানিজ্যের বিরুদ্ধে বিক্রমপুর টঙ্গীবাড়ী প্রেসক্লাবে সংবাদ সন্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে এ সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলার বেশনাল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম-প্রহরী সাধন চন্দ্র বাড়ৈ। সে তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মহোদয় তাহার নিজ কার্যালয়ে নির্দিষ্ট কোন পত্র ছাড়াই আমাকে চুক্তি নবায়নের জন্য ০২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইং তারিখে বেতন-ভাতা বন্ধ করে দেন।

আমি গত ৬ই আগষ্ট ২০১৯ ইং তারিখে আমার বিরুদ্ধে অানিত অভিযোগের বীপরিতে মহামান্য হাইকোর্টে একটি রীট পিটিশন দাখিল করি। হাইকোর্ট আমার পিটিশনটি আমলে নিয়া স্ট্রে আদেশ দেন। আমি সেই আদেশ নিয়ে আমার বেতন ভাতার জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসার এর কাছে গেলে আমার প্রাপ্ত বেতন ভাতার অর্ধেক এক লক্ষ টাকা ঘুস দাবী করে সে। আমি ঘুস না দিয়ে বিষয়টি উদ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানাইলে সে আমার বেতন ভাতা না দিয়ে আমার বিরুদ্ধ টঙ্গীবাড়ী থানায় আমি তাকে হুমকি দিচ্ছি বলে একটি সাধারন ডায়রী করে। বর্তমানে আমি আমার অসুস্থ বাবা,মা ও পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি।

এছাড়াও সম্প্রতি টঙ্গীবাড়ী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অাঞ্জুমান আরা এর বিরুদ্ধে,স্থাণীয়ভাবে স্কুল কমিটি অনুমোদন না দিয়ে উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে দিয়ে এডহোক কমিটি গঠন করে ১১টি স্কুলের ক্ষুদ্র মেরামতের ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা করে আত্নসাৎ, ৯২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্লিপ এর বরাদ্ধকৃত টাকা হতে ৬ হাজার টাকা করে ঘুস গ্রহন, বদলি বানিজ্যসহ টঙ্গীবাড়ী শিক্ষা কর্মকর্তা আঞ্জুমান আরা এর বিরুদ্ধে ব্যাপক দূর্ণীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে এ ব্যাপারে শিক্ষা কর্মকর্তা অঞ্জুমান আরার সাথে যোগাযোগ করা হলে সে তার বিরুদ্ধে অানিত সকল অভিযোগ অস্বিকার করে জানান, দপ্তরী কাম প্রহরী সাধন চন্দ্র বাড়ৈ যে স্কুলে কর্মরত সে স্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রত্যায়ন পত্র না দেওয়ায় তাকে নিয়ম অনুযায়ী আমি বেতন দিতে পারছিনা। সে আমাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে মানহানিকর বক্তব্য লিখে একটি স্ট্যার্টাস দেওয়ায় আমি তার বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারন ডায়রী করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.