দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করলো জাপান বিএনপি

রাহমান মনি: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে জাপান শাখা বিএনপি । ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান দলটি প্রতিষ্ঠা করেন।

১ সেপ্টেম্বর ‘২০ মঙ্গলবার জাপানে কর্মদিবস হওয়ায় নিকটবর্তী সাপ্তাহিক ছুটির দিন ( ৬সেপ্টেম্বর ‘২০ ) রোববার টোকিওর কিতা সিটি আকাবানে বুনকা সেন্টার বিভিও হলে দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে।

জাপান বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব নুর এ আলম (নূর আলী) ‘র সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাপান বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা এমডি, এস, ইসলাম নান্নু , বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাপান বিএনপির সহ সভাপতি এমদাদ মনি।

এছাড়াও প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাপান বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন ডিও। এসময় মঞ্চে আরও উপস্থিত ছিলেন জাপান বিএনপি নেতা দেলোয়ার হোসেন দফতরী , নজরুল ইসলাম রনি, মোঃ জসীম উদ্দিন , এনামুল ঢালী প্রমুখ ।

সহ সাংগঠনিক সম্পাদক নুর খান রনির পরিচালনায় আলোচনা সভার শুরুতেই পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করা হয়। পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করেন মোঃ আবুল খায়ের। এরপর বিএনপি নেতা সফিউল বারী বাবু সহ প্রাণঘাতী করোনায় মৃত সকলের রূহের মাগফেরাত কামনা এবং তাদের স্মৃতির প্রতি সন্মান জানিয়ে দাঁড়িয়ে একমিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

দিবসটির তাৎপর্যে বক্তব্য রাখেন মোঃ সেলিম আহমেদ , মোঃ আনোয়ার হোসেন রনি, মোঃ তানভীর হাসান, মোঃ ওমর ফারুক, মোঃ মিঠু, মোঃ নাসির উদ্দিন, জোবায়ের সানী, সাইফুর রহমান সোহেল, আনিসুল ইসলাম, সুমন ভুঁইয়া, মোঃ মনির হোসেন, তানভির আহমেদ, হারুন রাজু , রফিকুল ইসলাম রফিক, ওমর ফারুক রিপন, মোঃ খাইরুল ইসলাম, মোঃ হায়দার হোসেন, মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জনি, মোঃ নজ্রুল ইসলাম রাজীব, মোঃ আবুল খায়ের, আব্দুল হাইয়ুল, শেখ মক্সুদ আলী মাসুদ, হুদা রুমন, ফরহাদ চৌধুরী প্রিন্স, এনামুল ঢালী, দেলোয়ার হোসেন দফতরী, মোঃ জসীম উদ্দিন, দেলোয়ার হোসেন ডিও, এমদাদ মনি, এমডি,এস, ইসলাম নান্নু প্রমুখ।

তারা আরো বলেন ,এই মুহূর্তে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই। সরকার এখন শুধু খালেদা জিয়ার উপর নয় জিয়া পরিবারের নামের উপর ভয় পায়। তাই জিয়া পরিবারের নামে নিত্য নতুন কুৎসা রটনা করেই চলেছে। প্রকৃত ইতিহাস মানুষ জানে বলেই তাদের দেয়া বাংলার মানুষ তা আর গিলছে না। দলীয় প্রধান যদি রং হেডেড হন তাহলে এসব আজগুবি তথ্য আসতেই থাকবে।

তারা বলেন, ভোটার বিহীন নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী বনে যাওয়া শেখ হাসিনাকে হটানোই এখন আমাদের প্রধান ও একমাত্র দায়িত্ব। দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপিকেই এ দায়িত্ব নিতে হবে। আর এই জন্য আমাদের ঐক্য বদ্ধ হতে হবে।

তারা বলেন, দেশে আজ অচলাবস্থা বিরাজ করছে । তা থেকে উত্তরণের জন্য এই মুহূর্তে শহীদ জিয়াকেই সবচেয়ে বেশী মনে পড়ছে। তাই বাংলাদেশের ১৭ কোটি মানুষ প্রতীক্ষা করছে শহীদ জিয়ার উত্তরসুরী তারেক জিয়ার জন্য। একমাত্র তারেক জিয়া-ই কাণ্ডারি হিসেবে নেতৃত্ব দিয়ে দেশ কে বর্তমানের অচলাবস্থা থেকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে পারবেন ।

এই মুহূর্তে নিজেদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি দূর করে ঐক্যবদ্ধ থেকে আমাদের নেতা তারেক জিয়ার দেশে ফেরার পরিবেশ গড়তে হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.