নির্মাণের পাঁচ বছর পরও চালু হয়নি মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের দেড়’শো শয্যার নতুন ভবন

নির্মাণের পাঁচ বছর পরও চালু হয়নি, মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের দেড়’শো শয্যার নতুন ভবন। পড়ে থেকে নষ্ট হচ্ছে অনেক দামী ও মূল্যবান যন্ত্রপাতি। জেলার বিএমএ নেতা, এজন্য দায়ী করছেন স্বাস্থ্য বিভাগকে। সিভিল সার্জন বলেছেন, তার মতে,জনবল ও লজিস্টিক সুবিধা না পাওয়ায় এখন পর্যন্ত কার্যক্রম চালু করা যায়নি।

মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের দৃষ্টিনন্দন আধুনিক এ ছয়তলা ভবনে আইসিইউ, সিসিইউ, সেন্ট্রাল মেডিক্যাল গ্যাস সিস্টেমসহ রয়েছে চিকিৎসা সেবার সব রকমের আধুনিক সুবিধা। কিন্তু, সুষ্ঠু পরিকল্পনা ও দক্ষ জনবলের অভাবে ৩১ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই ভবনের স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে জেলার মানুষ। ২০১৫ সালের দিকে ভবনের কাজ পুরোপুরি শেষ হয়। কিন্তু, ভবনটিতে বিদ্যুৎ সংযোগসহ আরো কিছু কাজ দেরিতে হয়। ২০১৮ সালের জুন থেকে হাসপাতালটি নিয়ে চলছে দপ্তরে দপ্তরে চিঠি চালাচালি। এর কার্যক্রম শুরু না হওয়ায় জনমনে বাড়ছে ক্ষোভ।

বছরের পর বছর অপেক্ষার পরও, হাসপাতালটি চালু না হওয়ায় স্বাস্থ্য বিভাগের সমালোচনা করেন, এই চিকিৎসক নেতা। সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ জানান, জনবল এবং কিছু লজিস্টিক সুবিধা না থাকায় ভবনটি বুঝে নেয়া যাচ্ছে না। শুধু চিঠি চালাচালি নয়, শিগশিরই হাসপাতালটি চালু করার দাবি জানিয়েছে জেলাবাসী।

এস. এ টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.