মুন্সীগঞ্জ-গজারিয়া ফেরিঘাটের সরকারি জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ

মুন্সীগঞ্জে সরকারি জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। মুন্সীগঞ্জ-গজারিয়া ফেরিঘাটের মুন্সীগঞ্জ অংশে এই অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করছেন স্থানীয় তিন প্রভাবশালী ব্যক্তি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মুন্সীগঞ্জ-গজারিয়া ফেরিঘাট রাস্তার মোড় দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ কাজ করছেন শ্রমিকরা। অবৈধ স্থাপনার পাশে বসেই নির্মাণ কাজের তদারকি করছেন প্রভাবশালী মোজাম্মেল হক ও ইব্রাহিমসহ আরেক ব্যক্তি। অবৈধভাবে কেন সরকারি জমি দখল করে এই নির্মাণ কাজ চালানো হচ্ছে জানতে চাইলে দখলদার ওই তিন ব্যক্তি সংবাদকর্মীদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এ ছাড়া তাদের মারমুখী আচরণ ভিডিও ধারণ করায় তারা সংবাদকর্মীর মুঠোফোন কেড়ে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, প্রভাবশালী মোজাম্মেল, ইব্রাহিম ও নাম না জানা একজন ব্যক্তি এই নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। নদীর সীমনা ও ফেরিঘাট এলাকার রাস্তায় প্রভাব খাটিয়ে এই নির্মাণ কাজ করছেন তারা।

অবৈধভাবে দখলদার মোজাম্মেল ও ইব্রাহিম বলেন, এটি আমাদের নিজস্ব সম্পত্তি। এখানে আমরা যা মন চায় করবো আপনাদের কী। এ সময় সংবাদকর্মীরা জমির কাগজপত্র দেখতে চাইলে, তারা বলেন কোনো কাগজপত্র নেই। যদি পারেন তাহলে আমাদের কিছু করে দেখান।

এ বিষয়ে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবায়েত হায়াত শিপলু বলেন, আমরা এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। পরে ঘটনাস্থলে সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) পাঠানো হয়েছে। তিনি স্থাপনা নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন।

ওই স্থানটি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার চর-কিশোরগঞ্জ এলাকার মধ্যে পড়েছে। আমরা সোনারগাঁও উপজেলার সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) অবহিত করেছি। পরবর্তীতে তাদের মাধ্যমে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হবে।

বিষয়টিতে সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেজ বাউল সাবেরিন বলেন, তফসিলদারকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। নদীর অংশে বালু দিয়ে ভরাট করে তারা দোকানঘর নির্মাণ করছেন। তারা নিজেদের মালিকানা জমি দাবি করছেন। পরে কাগজপত্র দেখতে চাইলে তাৎক্ষনিক কিছু দেখাতে পারেনি, বলেছেন রবিবার ভূমি অফিসের কাগজপত্র নিয়ে হাজির হবেন।

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.