শোক জানাতে একযোগে ওষুধের দোকান বন্ধ, রোগীদের ভোগান্তি চরমে

মুন্সীগঞ্জের সকল ওষুধের দোকান এক যোগে ১ ঘণ্টা বন্ধ রেখেছে ওষুধ ব্যবসায়ীরা। বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতি (বিডিএস) মুন্সীগঞ্জ জেলা কমিটির সদস্যের মৃত্যুতে শোক জানাতে আজ সোমবার (২৩ নভেম্বর) দুপুর দুইটা থেকে তিনটা পর্যন্ত জেলার সকল ওষুধের দোকান বন্ধ রাখা হয়। এতে জরুরি সেবা পেতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন রোগী ও রোগীর স্বজনরা।

দূরদূরান্ত থেকে আসা অসংখ্য রোগী ও স্বজনরা ফার্মিসি থেকে জরুরি ওষুধ নিতে এসে হতাশ হয়ে পড়েন। কেউ কেউ হয়ে পড়েন দিশেহারা। এই করোনা মহামারি সময়ে অনেককে বৃদ্ধ মা, বাচ্চা নিয়ে ফার্মেসি দোকানগুলির সামনে দোকান খোলার অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। অনেক দোকানের কর্মচারীদের দোকান বন্ধ রেখে ওষুধ না দিয়ে দোকানের পাশে দাঁড়িয়ে থাকতেও দেখা যায়। জরুরি ওষুধ সময়মতো নিতে না পারায় কেউ কেউ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

জেলার চরাঞ্চলের জাজিরা এলাকা থেকে আগত হৃদরোগের রোগী সালেহা বেগম (৫০) জানান, ডাক্তারের দেয়া প্রেসক্রিপশন নিয়ে মুন্সীগঞ্জ সদরের সুপার মার্কেটে আসেন ওষুধ নিতে। এসে দেখেন দোকান বন্ধ। এক ঘণ্টা পর দোকান খুলবে সেই অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছেন।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির(বিডিএস) মুন্সীগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক সওকত আলী খান জানান, আমাদের জেলা কমিটির সদস্য ও সিরাজদিখান উপজেলা কমিটির সভাপতি ডা. আবুল খায়ের (গ্রাম্য ডাক্তার) করোনায় আক্রান্ত হয়ে গেলো ২১ নভেম্বর ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে মারা যান। তার মৃত্যুতে সমিতির পক্ষ থেকে শোক জানাতে গতকাল রোববার জেলা কমিটির সভায় আজ সোমবার দুপুর দুইটা থেকে তিনটা পর্যন্ত জেলার ছয় উপজেলার ওষুধের দোকান একযোগে এক ঘণ্টা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তারই পরিপ্রেক্ষিতে আজ এক ঘণ্টা জেলার সকল ওষুধের দোকান বন্ধ রাখা হয়। অতি জরুরি ক্ষেত্রে সরকারি হাসপাতালের সামনে একটি করে ওষুধের দোকান খোলা রাখা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও জানান, আগে থেকেই এভাবে শোক পালন করে আসা হয়ে ছিলো, তাই এবারও করা হয়েছে। রোগীদের কথা ভেবে আগামীতে আর দোকান বন্ধ রেখে এভাবে শোক পালন করব না। এ বিষয়ে সমিতির পরবর্তী সভায় আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) মুন্সীগঞ্জ জেলা সভাপতি ডা. আখতার হোসেন বাপ্পী বলেন, কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতি তাদের সহকর্মীর মৃত্যুতে সমবেদনা জানাই। তবে যেহেতু ওষুধ খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অন্য অনেকভাবে শোক প্রকাশ করা যায়। মানুষকে বিপদে ফেলে শোক প্রকাশ করার পদ্ধতি সঠিক নয়।

আরটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.