রাজধানী টোকিও সহ আশপাশের এলাকার জরুরী অবস্থা তুলে নেয়ার ঘোষণা

রাহমান মনি: জাপান সরকার পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী ২২ মার্চ সোমবার থেকে রাজধানী টোকিও এবং আশপাশের জেলাগুলো থেকে বর্তমানে চলমান করোনাভাইরাস জরুরি অবস্থা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। অন্যান্য জেলা গুলো হচ্ছে সাইতামা , চিবা এবং কানাগাওয়া।

প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা আজ এক সংবাদ সম্মেলনে জরুরী অবস্থা তুলে নেয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন। তবে, কোভিড ১৯ পুনরুথ্যান এড়ানোর জন্য জনগনের সচেনতার বিকল্প নেই বলে সুগা উল্লেখ করেন।

সুগা বলেন, আমরা ২ সপ্তাহের জন্য এই চারটি জেলায় জরুরী অবস্থা বারিয়ে বলেছিলাম ‘আমরা সতর্কতা অবলম্বন করবো। নতুন সংক্রমণের দৈনিক হিসাব হ্রাস না পেয়ে সমপর্যায়ে স্থিতিশীল থাকা সত্ত্বেও বৃহত্তর টোকিও অঞ্চলের হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা যে উন্নত হচ্ছে, সেই বাস্তবতার আলোকে সরকার ইতোপূর্বে ঘোষিত প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী জরুরি অবস্থা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

সুগা আরো বলেন, তবে জরুরি অবস্থা তুলে নেয়া হলেও রেস্তোরাঁ ও পানশালার প্রতি আগে বন্ধ করে দেয়া এবং দূরে অবস্থান করা অবস্থায় ( টেলিওয়ার্ক ) কর্মচারীদের কাজ করে যাওয়া উৎসাহিত করতে বিভিন্ন কোম্পানির প্রতি অনুরোধ জানানো সরকার অব্যাহত রাখবে।

একই সাথে কোনরকম উপসর্গ ছাড়া ভাইরাসের বাহকদের চিহ্নিত করতে এবং শহর এলাকায় বিস্তার নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রধান শহরগুলোতে বড় আকারের পরীক্ষা চালানো হবে বলে সুগা উল্লেখ করেন।

করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ রোধে জানুয়ারী মাসের ৮ তারিখ থেকে প্রথমে এই চারটি জেলায় জরুরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়। কিছুদিনের মধ্যে (১৩ জানুয়ারি) তা ১১ টি জেলায় সম্প্রসারিত করে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নিদিষ্ট সময়ে মাত্র ১ টি জেলা (তোচিগি ) থেকে জরুরী অবস্থা প্রত্যাহার করে বাকী ১০ টি তে আরো একমাস বর্ধিত করে ৭ মার্চ পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়।

কিন্তু বাস্তবতার পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষজ্ঞ টিমের পরামর্শে বৃহত্তর টোকিও অর্থাৎ টোকিও, সাইতামা,চিবা এবং কানাগাওয়া এলাকায় আরও ২ সপ্তাহের জন্য বর্ধিত করে ২১ মার্চ পর্যন্ত বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

rahmanmoni@gmail.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.