পদ্মার ভাঙনে মুন্সীগঞ্জে বিলীন ২০ বসতবাড়ি

আরও ৩০০ পরিবার আতঙ্কে
পদ্মার ভাঙনে গত দুই সপ্তাহে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের ছয়টি গ্রামের ২০টি বসতবাড়ি বিলীন হয়ে গেছে। এখনও ভাঙনের ঝুঁকিতে রয়েছে ইউনিয়নের সম্ভু হালদারকান্দি, মহেশপুর পশ্চিম, পূর্বকান্দি, ইসলামপুর (ভুতারচর) ও সরদারকান্দি গ্রামের পদ্মাপাড়ের তিন শতাধিক পরিবার।

রাস্তাঘাটসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাও রয়েছে ভাঙনের ঝুঁকিতে। বাংলাবাজার থেকে শিলই হয়ে দিঘিরপাড় যাওয়ার একমাত্র সড়কপথও ভাঙনের মুখে পড়েছে। অনেকে নদীপাড়ের বাড়িঘর সরিয়ে নিয়েছেন।

বাংলাবাজার ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ননী গোপাল হালদার বলেন, দ্রুত নদীভাঙন রোধে কার্যকর পদেক্ষপ গ্রহণ না করলে বর্ষা মৌসুমে গুরুত্বপূর্ণ বাড়িঘর ও রাস্তাঘাট বিলীন হয়ে যাবে। সরকারের কাছে একটাই দাবি, নদীশাসন করে আমাদের ভিটেমাটি রক্ষা করুন।

এলাকাবাসী জানান, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমের আগেই এ ভাঙন শুরু হয়। ভাঙন রোধে নদীশাসনের দাবি জানালেও কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আশ্বাস ছাড়া আর কিছুই মেলে না। ফলে ফসলি জমি হারাতে হচ্ছে বছরের পর বছর। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্নিষ্টরা ভাঙন রোধে দ্রুত পদক্ষেপ নিলে গ্রামগুলোকে রক্ষা করা যেত। সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা হামিদুর রহমান জানান, বিষয়টি তারা অবগত হয়েছেন। দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সমকাল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.