সিরাজদিখানে স্থানীয় পু‌লিশ‌কে মেনেজ ক‌রে ফসলী জমির মাটি কাটার মহোৎসব

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে তিন ফসলী জমির মাটি কাটার মহোৎসবে মেতেছে স্থানীয় প্রভাবশালী একটি সিন্ডিকেট। নিয়ম নীতির কোন প্রকার তোয়াক্কা না করে প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে দিন দুপুরে ফসলীর জমির মাটি কেটে ইট ভাটায় বিক্রি করে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে সিন্ডিকেটটির লোকজন। এছাড়া ব্যক্তি মালিকানা ফসলী জমির মাটি জোরপূর্বক কেটে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে সিন্ডিকেটে একাধিক লোকের বিরুদ্ধে।

অবৈধ ভাবে ফসলী জমির মাটি কাটা বন্ধে স্থানীয় লোকজন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামণা করেছেন। সরেজমিনে জানা যায়, উপজেলার চিত্রকোট ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ডাকের হাটি গ্রামের পূর্ব পাশে অবস্থিত তিন ফসলি জমির মাটি কেটে বিভিন্ন ইট ভাটায় বিক্রি করছে স্থানীয় হালিম খান ও সোহাগ নামে দুই ব্যক্তিসহ আরো বেশ কয়েকজন। প্রায় মাসাধিক কালেরও অধিক সময় ধরে চলছে অবৈধ ভাবে মাটি কাটার কর্মযজ্ঞ। এর মধ্যে ওই ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য মাসুম খান শফিউদ্দিনের সম্পৃক্ততার অভিযোগ রয়েছে। অনেকটা জোড় জুলুম করেই কেটে নেয়া হচ্ছে ওই এলাকার ফসলি জমির মাটি। এতে করে ওই এলাকার ফসলি জমির পরিমাণ দিন দিন কমতে শুরু করেছে। ফসল উৎপাদনে ব্যর্থ হচ্ছে স্থানীয় অর্ধশতাধিক কৃষক।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চিত্রকোট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শামসুল হুদা বাবুলসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অবৈধ ভাবে ফসলী জমির মাটি কাটতে বেশ কয়েকবার মৌখিক ভাবে নিষেধ করলেও কোন প্রকার তোয়াক্কা না করেই মাটি কেটে ইট ভাটায় বিক্রি করে আসছে সিন্ডিকেটের লোকজন। ফলে অনেকটাই নির্বিকার তারা। ফমলী জমি টিকিয়ে রাখতে তারা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত মাটি কাটা সিন্ডিকেটের সদস্য মোঃ হালিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হ্যা আমরা মাটি কাটি।

তবে এখনতো মাটি কাটা বন্ধ। চেয়ারম্যান সাহেব বলার পর আমরা মাটি কাটার ব্যবসা ছেড়ে দিবো চিন্তা করছি। গোয়ালখালী গ্রামের ভুক্তভোগী নুরুল ইসলাম বলেন তারা আমার জমির মাটি কেটে ১০-১২ ট্রাক মাটি নিয়ে গেছে। জানার পর বাধা দিয়েছি। আমি মামলা লিখে রেখে এসেছি। আগামীকাল করবো। এ ব্যপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি তাছনিম আক্তার বলেন, ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে বিষয়টি শুনেছি। অতি দ্রুত এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারা অবৈধভাবে মাটি কাটছেন তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

ক্রাইম ভিশন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.