সিরাজদিখানে স্ত্রীর ধাক্কায় মৃত্যু হল অন্ধ স্বামীর

নাছির উদ্দিন: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে স্ত্রীর ধাক্কায় পরে গিয়ে অন্ধ স্বামী ইসমাইল খান মিলনের(৫৩) এর মৃত্যু হয়েছে । গতকাল বৃহস্পতির সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার শেখরনগর ইউনিয়নের সিংগারডাক এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। মিলন সিংগারডাক গ্রামের দুলাল খানের পুত্র ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, নিহত মিলন হোসেন প্রায় ১৫ বছর আগে স্ট্রোক করে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন। এর পর থেকেই স্ত্রী শিমু খানের (৪২) সাথে স্বামী মিলন হোসেনের মনোমালিন্য চলতে থাকে। কিছুদিন যাবৎ মিলনের স্ত্রী তার স্বামীর কাছ থেকে ডিভোর্স চাচ্ছে। এবিষয়ে একাধিকবার স্থানীয়য় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বসেও আপস মিমাংসা না হওয়ায় তাদের বিরোধ চলে আসছে। আজ সকালে দুজনের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায় স্ত্রী শিমু খান মিলন হোসেনকে ধাক্কা দিলে মাটিতে পড়ে গিয়ে আহত হন । স্বজনরা ঢাকা মিটফোর্ড হাসপাতালে নিয়ে গেলে পথি মধ্যেই দৃষ্টিশক্তিহীন মিলন মারা যায় । তাদের সংসারে ১৬ বছরের প্রিয়া নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে ।

নিহত মিলনের চাচত বোন ঝুমুর বলেন, আমার ভাবির সাথে তার দেবর রুবেলের পরকিয়ার সম্পর্ক দীর্ঘদিন ধরে চলছিল। এনিয়ে তাদের মধ্যে প্রায় ঝগড়া ঝাটি হতো। আগামীকাল তার ডিভোর্সের ব্যাপারে উভয় পক্ষের লোক নিয়ে বসার কথা ছিল। আজ সকালে ভাবির সাথে এই বিষয় নিয়ে ঝগড়া বাধে রুবেলের সাথে। এর একপর্যায়ে শিমু খান ঝারু দিয়ে রুবেলের হাতে আঘাত করে। এসময় মিলন ঝগড়া থামাতে এলে স্ত্রী শিমু খানের ধাক্কায় মাটিতে লুটিয়ে পরে সেখানেই মারা যায়।

শেখরনগর তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো.নাছির উদ্দিন শেখ জানান,‘ঘটনার পর পরই আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বনিবনা ছিলনা। আজ সকালে দুজনের মধ্যেই ঝগড়া হয়েছে তবে স্ত্রীর ধাক্কায় নাকি স্ট্রোক করে মারা গেছে তা ময়নাতন্ত রিপোর্ট ছাড়া বলা যাচ্ছে না। ময়না তদন্তের জন্য লাশ বর্তমানে ঢাকা মিটফোর্ড হাসপাতালে রয়েছে । আমরাও বিষয়টি তদন্ত করছি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.