অতিষ্ঠ : তীব্র লোডশেডিং এ অতিষ্ঠ গজারিয়াবাসী

মোঃ আমিরুল ইসলাম নয়ন: তীব্র লোডশেডিং স্থবির হয়ে পড়েছে গজারিয়াবাসীর জনজীবন,২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১১ ঘণ্টার থাকছে না বিদ্যুৎ। আর পবিত্র রমজান মাসে লোডশেডিং এর সমস্যা হয়েছে আরও প্রকট। অসহনীয় লোডশেডিংয়ের দুর্ভোগের যেন শেষ নেই শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালিক, রোজাদারসহ সাধারণ মানুষের। সেহরি, ইফতার, তারাবির নামাজসহ দিনের বেশিরভাগ সময় বিদ্যুৎ না থাকায়; রোজাদার ও মুসল্লিরা বিপাকে পড়েছেন।

এলাকার পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকরা অভিযোগ করেছেন- রমজান শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিদ্যুতের লোডশেডিং বেড়ে গেছে। তারাবির নামাজের সময় বিদ্যুৎ না থাকায় নামাজ পড়তে মুসল্লিদের কষ্ট হয়। কিছুক্ষণের জন্য বিদ্যুৎ এলেও সারারাত জুড়ে চলে বিদ্যুতের আশা-যাওয়া।গৃহস্থালী ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে লো ভোল্টেজের কারনে বৈদেতিক পাখা, ফ্রিজসহ বিভিন্ন বৈদেতিক সরঞ্জাম ও কারখানা ঠিকমত চলছে না।

স্থানীয় ব্যবসায়ী সুমন মিয়া জানান, রমজান মাসে বিদ্যুতের লোডশেডিং দুঃখজনক। দিনে-রাতে অন্তত ২৫ বার বিদ্যুৎ যাওয়া-আসা করেছে। এতে করে ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী নষ্ট হয়ে যায়। ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষতি হয়।

এদিকে সামনে বিভিন্ন স্কুলে পরীক্ষা, বিদ্যুৎ শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। গ্রামীণ এলাকায় হালকা ঝড়-বৃষ্টিতে বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে বা তার ছিঁড়ে গিয়েও বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়। গ্রাহকদের অভিযোগ, এসব লাইন মেরামত করতে দীর্ঘ সময় লাগান বিদ্যুৎ কর্মীরা।

আর অভিযোগের তীর যাদের দিকে, সেই কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর গজারিয়া জোনাল অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরোদ্ধে গ্রাহকদের রয়েছে পাহাড়সম অভিযোগ।গ্রাহক সেবার বদলে গ্রাহকদের পদে পদে পড়তে হচ্ছে ভোগান্তিতে,ব্যাপক অনিয়ম, ঘুষ বাণিজ্য আর দুর্নীতিতে ঝর্ঝরিত ভবেরচর জোনাল অফিসে, নতুন সংযোগের জন্য গ্রাহকদের গুনতে হয় ১৫০০০ টাকা। ঘুষ না দিলে সংযোগ আবেদনের ফাইল চাপা পড়ে থাকে বছরের পর বছর।

লোডশেডিং এর বিষয়ে জানতে চাইলে,পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর গজারিয়া জোনাল অফিসের জিএম আবু রায়হান মুঠোফোনে জানান,বিদ্যুতের কোন লোডশেডিং নেই,তবে কারিগরি কিছু ত্র“টির জন্য কিছু জায়গায় বিদ্যুৎ থাকছে না।

এফএনএস

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.