না’গঞ্জে গণধোলাই দিয়ে ‘ডাকাত’কে পুলিশে সোপর্দ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ডাকাতিকালে আব্দুর রহিম নামে এক ব্যক্তিকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। এ সময় তার কাছ থেকে ৫টি ককটেল উদ্ধার করা হয়।

উপজেলার ভূইগড় এলাকায় শনিবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। আটক আহত আব্দুর রহিমকে ৩শ’ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আব্দুর রহিম মুন্সীগঞ্জ জেলার তোতা মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে। বর্তমানে সে শনিরআখড়া বসবাস করত।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার ভোরে ভূইগড় এলাকায় হাজী আব্দুল মান্নানের বাড়িতে একদল ডাকাত হানা দেয়। এ সময় এলাকাবাসী প্রতিরোধের চেষ্টা করলে ডাকাতরা পরপর কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় একজনকে আটক করে গণধোলাই দেয় এলাকাবাসী। অপর ডাকাতরা কয়েকটি ককটেল ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী এক ডাকাতকে ৫টি ককটেলসহ পুলিশে সোপর্দ করেন।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আটক ডাকাতের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে শহরের ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট খানপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর ডাকাতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

দ্য রিপোর্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.