ধ্যানচর্চায় জীবন বদলে গেছে দাইয়ানদের, ২১ জুন বিশ্ব যোগ দিবস

মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল: মনিরুজ্জামান দাইয়ান। তার পাল্টেছে ধ্যান চর্চা করে। ৫১ বছর বসয়ী দাইয়ানের জীবনে হতাশা এতটা জর্জরিত ছিল যে বিয়ে পর্যন্ত করেননি। এখন ধ্যান চর্চা (যোগ-মেডিটেশন) করে জীবন গুছাচ্ছেন। হতাশার জীবনে এখন নানা সম্মবনা হাত ছানি দিয়ে ডাকছে। দাইয়ান বলেন, “ধ্যান চর্চচার আগের এখনকার জীবন বিস্তর ফারাক।” তার বাবা-মা নেই। তেজ গাঁ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে এয়ার কুলারের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ান দাইয়ানের হত্যার কারণে দায়িদ্রতার পাশপাশি তার জীবনই মূলহীন মনে করতেন। আর এখন চিত্র ভিন্ন। এখন তার রোগ-বালাই সেরেগেছে কোন টেনশন-হতাশা নেই। শহরের জুবলি রোডের পাকিজা টাওয়ারের নিজ তলায় এখন এসি মেরামতের দোকান নিয়েছেন। শহরের উত্তর ইসলামপুরে বাসিন্দা দাইয়ান বলেন, “যেন আমি নতুন জীবন ফিরে পেয়েছি। এখন কোন ক্ষোভ দুঃখ কষ্ট নেই। আছে প্রশান্তি। তাই কর্মতৎপরতাও বেড়েগেছে। জনাব দাইয়ানের মত আরও অনেকেরই জীবন পাল্টেগেছে।

শহরের দেওভোগ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা মুকুল রানী সাহা। নানা সমস্যায় ছিলেন। তিনি হাটু ভাঙ্গতে পারতেন এখন শাভাবিক জীবন যাপন করছেন। আরেক শিক্ষিকা তামান্না সরকারের মেডিটেশন চর্চার পরবর্তী অনুভূতিও বিস্মিত করবে। এসব কারণে নানা শ্রেণি পেশার মানুষ এখন নিয়মিত ধ্যান চর্চা করছেন। প্রতি শক্রবার সকালে ও বিকালে শহরের জুবলি রোডে ধ্যান চর্চাচাকারীরা গুপ মেডিটেশন করেন। সর্বস্তরের মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই যোগ-ধ্যান বা মেডিটেশন। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে- দেশে এখন লক্ষাধিক মানুষ নিয়মিত মেডিটেশন চর্চা করছেন। ব্যক্তিগতভাবে চর্চার পাশাপাশি বিভিন্ন অফিসে, এমনকি পার্কে, মাঠে-ময়দানেও যৌথভাবে নিয়মিত মেডিটেশন চর্চা করছেন তাদের অনেকেই।

আর মেডিটেশনের বহুবিধ উপকারিতা বিবেচনা করে বাংলাদেশ সরকারও সম্প্রতি একে চিকিৎসাব্যবস্থার মূলধারায় অন্তর্ভুক্ত করেছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ-এর সাথে যৌথভাবে ২০১৩ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার উচ্চ রক্তচাপ চিকিৎসায় যে জাতীয় চিকিৎসা নীতিমালা প্রণয়ন করেছে তাতে বলা হয়েছে, “চিকিৎসকগণ যেন স্ট্রেস-আক্রান্ত ও উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের নিয়মিত যোগ, মেডিটেশন, শিথিলায়ন ইত্যাদি চর্চার পরামর্শ দেন”

শুধু দেশে নয়, যোগ-মেডিটেশনের সার্বিক মনোদৈহিক উপকারিতার বিষয়টি এখন আলোচিত হচ্ছে পুরো বিশ্বজুড়ে। ২০১৫ সালে জাতিসংঘের ৬৯ তম সাধারণ অধিবেশনে ১৭৫টি দেশের সমর্থনে ২১ জুনকে ‘বিশ্ব যোগ দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এবং সে বছরই প্রথমবারের মতো ‘বিশ্ব যোগ দিবস’ উদযাপনকালে মহাসচিব বান কি মুন নিজেও সবার সাথে যোগ-মেডিটেশনে অংশ নেন এছাড়াও দীর্ঘ একবছর যাবৎ নাগরিকদের ওপর যোগ-মেডিটেশনের কল্যাণভূমিকা প্রত্যক্ষ করে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সর্বদলীয় সংসদীয় কমিটি দেশব্যাপী মেডিটেশন প্রশিক্ষণের জন্যে ১০ মিলিয়ন পাউন্ড বরাদ্দের প্রস্তাব পেশ করে। অবশ্য তার আগেই ২০১১ সালে ব্রিটিশ সরকার যোগ-মেডিটেশনের ওপর থেকে ভ্যাট প্রত্যাহার করে নেয়। এর পাশাপাশি ইংল্যান্ডের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস (এনএইচএস) মেডিটেশনকে মূলধারার চিকিৎসাব্যবস্থা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। বর্তমানে সে-দেশের শতকরা প্রায় ৩০ ভাগ চিকিৎসক রোগীদের মেডিটেশন প্রেসক্রাইব করছেন।

নিয়মিত মেডিটেশন চর্চায় চিকিৎসা-ব্যয় কমে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত প্রভাবশালী পত্রিকা টাইম ম্যাগাজিনের একটি নিবন্ধে (১৩ অক্টোবর ২০১৫) বলা হয়েছে, সে-দেশে হৃদরোগ ও ক্যান্সারের পরেই সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় হয় স্ট্রেসের কারণে সৃষ্ট রোগগুলোর চিকিৎসার্থে। এসব রোগের দাওয়াই হিসেবে মেডিটেশন ধন্বন্তরী, এ কথা এখন সর্বজনবিদিত। আর এ কারণেই ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হসপিটালের উদ্যোগে ৪ হাজার ৪০০ মানুষের ওপর পরিচালিত একটি বড় আকারের গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত মেডিটেশন চর্চাকারীদের বাৎসরিক চিকিৎসা-ব্যয় হ্রাস পেয়েছে জনপ্রতি ৪৩ শতাংশ। অর্থাৎ জনপ্রতি সাশ্রয় হয়েছে ৬৪০ ডলার থেকে ২৫ হাজার ৫শ’ ডলার পর্যন্ত। এ রিপোর্টে বলা হয়েছে, নিয়মিত মেডিটেশন চর্চায় শরীর-মন সুস্থ থাকে, রোগ নিরাময় দ্রুততর হয় এবং চিকিৎসা-ব্যয় হ্রাস পায় ও বিপুল পরিমাণ অর্থ সাশ্রয় ঘটে।

ধ্যান চর্চাকারী মাহবুব রশীদ বলেন, এসব বিষয় মাথায় রেখেই পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতও ২০১৫-১৬ সালের ঘোষিত বাজেটে যোগ-মেডিটেশনের ওপর থেকে সার্ভিস-ট্যাক্স স্থায়ীভাবে প্রত্যাহার করে একে চ্যারিটেবল অ্যাক্টিভিটিজ-এর অন্তর্ভুক্ত করে নিয়েছে। আনন্দের সংবাদ এই যে, তারও আগের বছর অর্থাৎ ২০১৪ সালের জাতীয় বাজেট প্রস্তাবনায় বাংলাদেশ সরকার মেডিটেশন-সেবার ওপর পূর্ব-আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহার করে। সে-বছরের জাতীয় বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মহিত বলেন, “মেডিটেশন-সেবা গ্রহণ করে হতাশাগ্রস্ত অনেক শারীরিক ও মানসিক ব্যাধিগ্রস্ত মানুষ মুক্তির প্রয়াস পায়। সে কারণে মেডিটেশন-সেবার ওপর থেকে মূসক প্রত্যাহারের প্রস্তাব করছি।” সংসদ সদস্যগণের আলোচনার পর প্রস্তাবটি সংসদে গৃহীত হয় এবং বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয় ৫ জুন ২০১৪-তে গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে মেডিটেশন-সেবাকে মূসক (ভ্যাট) থেকে অব্যাহতি প্রদান করে।

জনাব রশীদ বলেন, অর্থাৎ এক্ষেত্রে আমরা ভারতের চেয়েও এগিয়ে ছিলাম। ‘ছিলাম’ বলছি এ কারণে যে, এ বছরের সদ্যঘোষিত বাজেট বক্তৃতায় এ ভ্যাট-অব্যাহতি প্রত্যাহার করে নেয়া হয় অর্থাৎ মেডিটেশন-সেবার ওপর পুনরায় ভ্যাট আরোপ করা হয়। কিন্তু কথা হলো, একবার এগিয়ে গিয়ে তো আমরা আবার পিছিয়ে যেতে পারি না। জাতি হিসেবে আমাদের ইতিহাস পায়ে পায়ে ক্রমাগত এগিয়ে যাওয়ার ইতিহাস। এক্ষেত্রে কেন আমরা পিছিয়ে যাব?

মনিরুজ্জামান দাইয়ান জানান, হাজার বছর ধরে বাংলার পথ প্রান্তর, মাঠঘাট, প্রার্থনালয়, জনমানস অনুপ্রাণিত হয়েছে এক ঝাঁক আলোকিত, নৈতিক-মানবিক চেতনায় উদ্বুদ্ধ মহান মানুষের প্রজ্ঞা¯œাত বাণী আর নিরলস প্রয়াসে। মহামতি বুদ্ধ, শ্রীজ্ঞান অতিশ দীপঙ্কর, হযরত শাহজালাল (র), শাহ পরান (র), স্বামী বিবেকানন্দ সহ অসংখ্য বুজর্গ-ঋষি বাংলার সেই ঋদ্ধ ধ্যান ঐতিহ্যের প্রতিনিধি। ধ্যান ছিল তাঁদের সার্বজনীন শিক্ষার নির্যাস, যা বিভিন্ন আচারে প্রচারিত ও প্রসারিত হয়েছে, এদেশের ধর্মবর্ণজাতি নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের কল্যাণে।

ধ্যান চর্চাকারী কলেজ শিক্ষক ফারহানা মির্জা জানান, স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে বিশেষত গত চার দশকে প্রাচীন বাংলার সেই ধ্যান ঐতিহ্যের এক অভূতপূর্ব পুনর্জাগরণ হয়েছে। মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে ধ্যান আবারো বাঙালি সংস্কৃতির অঙ্গে পরিণত হচ্ছে। আমরা দেখেছি ধ্যানী মানুষ অধিকতর প্রশান্ত, নীরোগ, সুখী, কর্মঠ এবং একনিষ্ঠ। নিয়মিত ধ্যান একজন মানুষকে নৈতিক মানবিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত করে। ফলে তিনি অন্তর্গতভাবেই সৎ এবং দেশপ্রেমী হয়ে ওঠেন। তাই বিশ্ব যোগ দিবসের প্রথম বছর পূর্তিতেই ধ্যান চর্চায় যুগান্তকারী সময় পার করছে দেশ। চিকিৎসা সেবার অংশ যোগ-মেডিটেশন চর্চা। আর যেহেতু স্বাস্থ্য সেবায় ভ্যাট প্রত্যাহার হয়েছে, সেই অনুযায়ী এবারের বাজেট যোগ-মেডিটেশন চর্চাও ভ্যাট প্রত্যাহার হবে বলে মনে করছেন, অর্থনীতির শিক্ষক সাইফুর রহমান। তিনি মনে করেন, যোগ-মেডিটেশন চর্চা প্রসারিত হলে অর্থনৈতিক আরও মজুদ অবস্থান ছাড়াও দেশে সৃশঙ্খলা এবং প্রশান্তি বাড়বে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.