অপহৃত স্কুল টুম্পা ঘোষ ২০ দিনেও উদ্ধার হয়নি

মুন্সীগঞ্জে অপহৃত স্কুল ছাত্রী টুম্পা ঘোষ ২০ দিনেও উদ্ধার হয়নি। এদিকে মেয়ে চিন্তায় মা পারুল ঘোষ ও বাবা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সামু ঘোষ এখন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। আবদুল্লাহপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী টুম্পা গত ২ জুন নিখোঁজ হয়। এই ঘটনায় তিনজনকে গ্রেফতার পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, এনজিও কর্মচারী মাসুদ রানার (২৭) সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল কিশোরী টুম্পার। প্রেমিকের সাথে কথা বলার সময় স্থানীয় লম্পট সোহেল মৃধা (৪৬) ও বাজার পাহারাদার স্বপন(৩৮) তাদের জিম্মি করে। পরে এনজিও সি-দ্বীপ’র বাবুর্চি মনি বেগম ওরফে সোনাবানুর (৪২) এবং পাশের মর্জিনা বেগমের (৫০) বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখে। এই সময় প্রেমিক মাসুদের কাছে থাকা ১৫ হাজার টাকা, দুই ভরী স্বর্ণালংকার ও দুটো মুঠো ফোন ছিনিয়ে নিয়ে তাকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয় এবং টুম্পাকে একা অন্য এক স্থানে নিয়ে যায় লম্বটরা।

এরপর থেকে টুম্পার আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছেনা। নিখোঁজ রয়েছে এনজিও কর্মী মাসুদ রানাও। এ ঘটনায় টুম্পার বাবা সামু ঘোষ বাদী হয়ে গত ৪ জুন টঙ্গীবাড়ী থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। টঙ্গীবাড়ি থানার ওসি আলমগীর হোসেন মঙ্গলবার বিকালে জানান, টুম্পা বেঁচে আছে এটি নিশ্চিত করা যাচ্ছে। তাকে উদ্ধারের সব চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এই ঘটনায় সোহেল মৃধা, সোনাবানু ও মর্জিনা বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। এদিকে টুম্পাকে উদ্ধারের চেষ্টায় অসুস্থ পিতা-মাতা দ্বারে দ্বারে ঘুরছে। মঙ্গলবার বিকালে তারা সাংবাদকর্মীদের শরনাপন্ন হন। কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

জনকন্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.