শ্রীনগরে ভিজিএফ কার্ডের চালে ওজনে কম দেওয়ার অভিযোগ

শ্রীনগরে ঈদের ভিজিএফ কার্ডের চাল ওজনে কম দেয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার উপজেলার রাঢ়ীখাল ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে দেখা যায়, নিয়ম অনুযায়ী জনপ্রতি ২০ কেজি করে চাল দেওয়ার কথা থাকলেও প্রত্যেককে ছোট আকারের দুই বালতি করে চাল দেওয়া হচ্ছে। যা পালা-পাথরের মাপে ১৫ কেজি। এ হিসাবে একজনকেই কম দেওয়া হচ্ছে ৫ কেজি করে। আর এসবই হচ্ছে ঐ ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আঃ বারেক খান বারীর উপস্থিতিতে। ওজন কম দেওয়া নিয়ে কথা বলায় তিনি ভিজিএফ কার্ডের উপকারভোগীদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন।

অনুসন্ধানে জানাযায়, ঐ ইউনিয়নে ভিজিএফ কার্ডের উপকারভোগীর সংখ্যা ৬৪২ জন। একজনকে ৫ কেজি করে কম দেওয়ায় মোট কম দেওয়ার পরিমাণ দাড়ায় ৩ হাজার ২ শত ১০ কেজি। যার আনুমানিক বাজার মূল্য লক্ষাধিক টাকার উপড়ে।

সকাল ১১ টার দিকে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ২ নং ওয়ার্ডের লোকজনদেরকে ওজনে কম দেওয়ায় উপকার ভোগীদের মধ্যে অশন্তোষ দেখা দেয়। ২০ জনের চাল ইউনিয়ন পরিষদের পাশ্ববর্তী দোকানে নিয়ে মেপে দেখা যায় ৫ কেজি করে কম। এনিয়ে উপকার ভোগীরা প্রতিবাদ করলে ঐ ওয়ার্ডের সদস্য হারুন মেম্বার বলেন, এরকম কম হতেই পারে। এনিয়ে কেউ কথা বললে তাদের ভিজিএফ কার্ড বাতিল করে দেওয়া হবে।

উপকারভোগী রহিম বেগম (৫৫), হারুন মিয়া (৬৫) ও আমেনা বেগম (৫৮) দুঃখ করে বলেন, আমার গরীব মানুষ, আমাদেরকে ওজনে কম দিয়ে ঠকাচ্ছে। এদুর্নীতির বিচার আমরা কার কাছে চাইবো?

এব্যাপারে চেয়ারম্যান আ: বারেক খান বারী বলেন, শুরুতে কম দেওয়া হলেও পরে তা ঠিক ভাবেই দেওয়া হয়।

শ্রীনগর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা যতন মার্মা বলেন, ওজনে কম দেওয়া হলে তদন্ত করে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.