আওয়ামী লীগ জাপান শাখা ইফতার মাহফিল

রাহমান মনি: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাপান শাখা প্রতি বছরের মতো এবারও জাপান প্রবাসীদের সৌজন্যে এক ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে।

দলের ৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের মাত্র ৪ দিন পূর্বে ১৯ জুন রোববার রাজধানী টোকিওর কিতা সিটি ওজি হোকু তোপিয়ার স্কাই হলে আয়োজিত এই ইফতার মাহফিলে দূর-দূরান্ত থেকে নেতাকর্মীরা ছুটে এসে যোগ দেন। দলীয় নেতৃবৃন্দ ছাড়াও সামাজিক-সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ প্রবাসীরা অংশগ্রহণ করায় ইফতার মাহফিল ধর্মীয় আয়োজন হলেও ভিন্ন ধর্মীয় এবং একইসঙ্গে ভিন্ন মতাবলম্বীদের উপস্থিতি সার্বজনীন করে তোলে।
ইফতার মাহফিল অত্যন্ত আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের বিচ্যুতি ঘটেনি। দোয়া মাগফেরাত কামনায় দলের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এই পর্যন্ত বিভিন্ন ত্যাগী নেতা যারা মৃত্যুবরণ করেছেন, যারা দলের জন্য আত্মত্যাগ স্বীকার করেছেন তাদের সকলের প্রতি সম্মান জানিয়ে দেশ ও জাতির সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।

আওয়ামী লীগ দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল হওয়া সত্ত্বেও জাপান শাখা আওয়ামী লীগ ইফতার মাহফিল আয়োজনে অংশগ্রহণকারী সকলের প্রতি সম্মান দেখিয়ে রাজনৈতিক বক্তব্য প্রদান থেকে বিরত থাকে। এমনকি নেতৃবৃন্দের জন্য কোনো বিশেষ মঞ্চও রাখা হয়নি। সভাপতি সালেহ্ মো. আরিফ, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আসলাম হিরা এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মাসুদুর রহমান অতিথিদের স্বাগত জানান, ইফতার এবং ইফতার উত্তর নৈশভোজে দলীয় নেতৃবৃন্দের কাজের শামিল হন এবং অতিথি আপ্যায়নে বিভিন্ন তদারকি করেন যা সকল মহলে প্রশংসিত হন।

২০১৪ সালে জাপান আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সালেহ্ মো. আরিফ এবং খন্দকার আসলাম হিরাকে যথাক্রমে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনীত করে কেন্দ্রীয় অনুমোদনের জন্য জাপান আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কেন্দ্রে পাঠানো হয়। সেই থেকে জাপান আওয়ামী লীগে প্রাণ সঞ্চারণাসহ বিভিন্ন আয়োজনে দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ প্রবাসীদের (যারা কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নন) অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেতে থাকে। এবং সেই থেকে দলের যে কোনো আয়োজনে আরও বড় পরিসরের প্রয়োজন হয়ে পড়ে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে এবারের ইফতার মাহফিলের জন্য হল নেয়া হয়। কিন্তু এবারও অতিথিদের উপস্থিতি উপচে পড়ে। ভবিষ্যতে হয়তো আরও ব্যাপক পরিসরে আয়োজনের ব্যবস্থা নিতে হবে।

এই ব্যাপারে সভাপতি সালেহ্ মো. আরিফের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জনগণের জন্য জনগণকে নিয়ে কাজ করা একটি বৃহত্তম দল। আপনাদের সহযোগিতা পেলে ভবিষ্যতে আমরা আরও বড় হল নিয়ে এবং আপনাদেরকে সঙ্গে নিয়ে সব ধরনের আয়োজন করতে পারব ইনশাআল্লাহ্।

rahmanmoni@gmail.com

সাপ্তাহিক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.