গণধর্ষিতার বাবা ও স্বামীর কাছ থেকে স্ট্যাম্পে সই!

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ করেছে তিন লম্পট। এরপর তার বাবা ও স্বামীর কাছ থেকে স্ট্যাম্পে সইও নিয়েছে তারা। মঙ্গলবার উপজেলার টঙ্গীবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. রেজোয়ানা আক্তার ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি যুগান্তরকে বলেন, ‘ওই গৃহবধূ আমাদের এখানে চিকিৎসা নিয়েছেন। তার শরীরে ধর্ষণের আলামত রয়েছে।’

দুপুরে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়ে ওই গৃহবধূ এখন উপজেলার কুড়মিরা গ্রামের পিত্রালয়ে অবস্থান করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ছয় বছর আগে ওই গৃহবধূর পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই টঙ্গীবাড়ী উপজেলার দশত্তর গ্রামের মাসুম শিকদার তাকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল।

ওই গৃহবধূ তার স্বামীকে নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার পাগলা এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন।

রোববার সকালে মাসুম শিকদার ওই গৃহবধূকে পাগলা থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে নিয়ে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার দশত্তর গ্রামের শাহ আলমের বাড়িতে নিয়ে আসে। পরে তাকে ওই বাড়িতে আটকে রেখে গণধষর্ণ করে মাসুম শিকদার, কুদ্দুস মুন্সী ও বজলু সেখ।

ধর্ষিতার বাবা জানান, ‘রোববার রাতভর নির্যাতন করে সোমবার সকালে আমার মোবাইলফোনে কল করে আমার মেয়েকে ফেরত দেয়ার জন্য এক লাখ টাকা দাবি করে তারা।’

তিনি বলেন, ‘আমি দশত্তর এলাকায় গেলে আমার মেয়েকে কোনো নির্যাতন করা হয়নি মর্মে একটি স্ট্যাম্পে আমার ও আমার জামাতার সই নিয়ে তাকে আমার হাতে তুলে দেয়।’

যুগান্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.