বনানীতে চিরনিদ্রায় প্রাণের চেয়ারম্যান

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) মাহতাব উদ্দিন আহমেদকে আজ শুক্রবার বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। বিদেশে অবস্থানরত তাঁর সন্তানরা দেশে ফিরে আসায় পরিবারের পক্ষ থেকে শনিবারের পরিবর্তে আজ মাগরিবের নামাজের পর দাফন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এদিকে মাহতাব উদ্দিন আহমেদের জানাজা শুক্রবার বাদ জুমা গুলশান আজাদ মসজিদে এবং বিকেলে তাঁর দীর্ঘদিনের কর্মস্থল প্রাণ-আরএফএল সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের মিডিয়া ম্যানেজার জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) মাহতাব উদ্দিন আহমেদ রাজধানীর নাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন।

প্রাণ-আরএফএলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মাহতাব উদ্দিন আহমেদ স্ত্রী, দুই ছেলে, দুই মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।

মাহতাব উদ্দিন আহমেদ ১৯৩৩ সালের ২৬ জুন মুন্সীগঞ্জ জেলায় সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম খান বাহাদুর মাহবুব উদ্দিন আহমেদ ও মায়ের নাম সারা বেগম।

মাহতাব উদ্দিন আহমেদ ১৯৫১ সালে তৎকালীন পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন। সেনাবাহিনীতে দীর্ঘ কর্মময় জীবনে তিনি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৪ সালে তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী থেকে লেফটেন্যান্ট কর্নেল হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন। ১৯৭৪ থেকে ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত তিনি টাঙ্গাইল কটন মিলস ও বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস করপোরেশনের পরিচালকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৮৩ সালের নভেম্বরে মাহতাব উদ্দিন আহমেদ প্রাণ-আরএফএল গ্রুপে যোগ দেন। মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তিনি প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার পাশাপাশি তিনি রোটারি, রাওয়াসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

এনটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.