সরকারী হরগঙ্গা কলেজের ছাত্রাবাসের বেহাল দশা

এম.এম.রহমান: মুন্সীগঞ্জ জেলার অন্যতম ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারী হরগঙ্গা কলেজটির ছাত্রবাসের বেহাল দশা। দীর্ঘদিন কোন সংস্কার কাজ না করার কারনে ছাত্রাবাসটি অনেকটা ব্যবহারের অনুপুযুক্ত হয়ে পড়ছে। ১৯৩৮সালে সরকারি হরগঙ্গা কলেজ প্রতিষ্ঠা হওয়ার পর থেকে সুনাম অর্জন করেন কলেজটি। আস্তে আস্তে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে শিক্ষার্থীরা এসে ছাত্রাবাসে থেকে এই প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বর্তমানে শহীদ জিয়াউর রহমান ছাত্রাবাসের অবস্থাও এখন শোচনীয়। চারদিকে নোংরা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ,বাথরুম অবস্থা নাজুক। রয়েছে পানি সল্পতা স্যাত স্যাতে অনেকটা পাবলিক টয়লেটের মতো। রয়েছে ছাত্রবাসের ছাত্রদের খাবার পানির সল্পতা। হলটিতে রয়েছে বহিরাগতদের নিত্য আনা-গোনা। রয়েছে মাদক সেবীদের নিয়মিত আড্ডা। সরকার থেকে ছাত্রাবাসের জন্য বাজেট আসলেও তা ঠিকমত ব্যবহার হচ্ছেনা বলে অভিযোগ ছাত্রাবাসে থাকা আবাসিক ছাত্রদের ।

অন্যদিকে ছাত্রাবাসের সেঁতসেঁতে দেয়াল, নোংরা বেসিন, তীব্র পানি সংকট, ভাঙ্গা দরজা, নোংরা টয়লেট ও বহিরাগতদের নিত্য আনা-গোনা সব মিলিয়ে একটা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিয়ে কাটছে শিক্ষার্থীদের জীবন। এদিকে ছাত্রাবাসে নিরাপত্তা ও পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় ময়মনসিংহ, চাঁদপুর, শরিয়তপুর, মাদারিপুর, ফরিদপুর, নারায়নগঞ্জ, গোপালগঞ্জ, কুমিল্লা, নোয়াখালি, বরিশালসহ অন্যান্য জেলা থেকে এই কলেজে পড়তে আসা ছাত্রদের বাধ্য হয়ে থাকতে হচ্ছে মেসে।এতে তাদের গুনতে হচ্ছে বাড়তি খরচ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিজ্ঞান শাখার একাধিক ছাত্র জানান, ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠিানের আবাসিক হলের যদি এ অবস্থা । আমি আগস্ট মাসে এই ছাত্রবাসে উঠেছি। আর এসেই দেখলাম ছাত্রাবাসের অবস্থা তেমন ভাল না। তারা আরো বলেন,বিশেষ করে বাথরুম ও খারার রুমের অবস্থা খুবই খারাপ। বাথরুমে রয়েছে পানির সংকট। টয়লেটে যেতে হলে ৩ তলা থেকে নিছে গিয়ে কলেজের পুকুড় থেকে পানি নিয়ে বাথরুমের কাজ সারতে হয়।

আরেক ছাত্র মিজান বলেন,আমাদের ডাইনিং খাবারের মান ভাল নয় । সেখানে যে খাবার দেওয়া হয় তা খাওয়ার উপযোগী নয়। যেখানে সেখানে অনেক ময়লা আবর্জনা পড়ে আছে। আমাদের প্রতিদিনের খাবার তৈরী করার জন্য কলেজের পুকুরের পানি ব্যবহার করা হচ্ছে। মাঝে মধ্যে খাবারের মধ্যে তেলাপেঁকা, টিকটিকি, গাছের ছাল বাকল ও সিগারেটের খোঁসা পাওয়া যায়। ছাত্রাবাসে রাতের আঁধারে বহিরাগতরা ছাত্রাবাসে এসে মাধক সেবন করে। প্রায় আমাদের রুম ও রুমের বাইরে থেকে লুঙ্গি, জুতা, শার্ট, পেন্ট চুরি করে নিয়ে যায়।

এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সরকারী হরগঙ্গা কলেজের গনিত বিভাগের প্রধান ও শহীদ জিয়াউর রহমান এর হল সুপার সিরাজুল ইসলাম জানান, আমাদের কলেজের ছাত্রাবাসে কিছুটা সমস্যা আছে। সমস্যা সমাধানে জন্য সংস্কার করা হচ্ছে। অচিরেই এ সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।

সরকারী হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ মীর মাহফুজুল হক বলেন, ছাত্রবাসের নানা সমস্যা এবং বহিরাগত মাদক সেবীদের ব্যাপারে পুলিশ প্রশাসন এবং উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে চিঠির মাধ্যমে অবগত করেছি।

সরকারী হরগঙ্গা কলেজের আবাসিক হোস্টেলের ছাত্রবাস, ছাত্রদের খাবারের মান, মাদকসহ নানা সমস্যার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে প্রশাসন এমনটাই দাবি আবাসিক হোস্টেলে থাকা ছাত্রদের।

চমক নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.