কৃষকের ঈদ আনন্দ: যেখানে প্রোথিত শেকড়ের ঘ্রাণ

‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’ গ্রামীণ মানুষকেও যুক্ত করেছে গণমাধ্যমের ঈদ আয়োজনে
একটা সময় ছিলো যখন টেলিভিশনে ঈদ অনুষ্ঠান মানেই শহুরে মানুষের হাসি কান্নার গল্প। ছিলো তারকা শিল্পীদের অংশগ্রহণে নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মানুষকে বিনোদিত করার চেষ্টা। সেইসব ঈদ আয়োজনে ঠিক কোথায় সেই গ্রামের কৃষকটি, যার শ্রমে ঘামে উৎপাদিত ফসলে নিবারিত হয় মানুষের ক্ষুধা? তাকেও যুক্ত করতে হবে এই আনন্দধারায়। সেও এ সমাজের, এ দেশের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। সেই চিন্তা থেকে সারাজীবন কৃষকের সামনে মাইক্রোফোন আর ক্যামেরা ধরে রাখা এক টেলিভিশন অনুষ্ঠান নির্মাতা সিদ্ধান্ত নেন নিজেই বানাবেন কৃষক ও গ্রামীণ মানুষের জন্য তাদের অংশগ্রহণেই ঈদ অনুষ্ঠান ফার্মারস গেইম শো ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’। বাকিটুকু ইতিহাস। শাইখ সিরাজের পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনায় ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’ সারাদেশের মানুষের প্রাণের অনুষ্ঠানে রূপ নেয়। কারণ এটাতে লেগে আছে মাটির সুবাস, শেকড়ের ঘ্রাণ! যে অনুষ্ঠানে সর্বাধিক দর্শকের চোখ আটকে থাকে এর নির্মাণ গুণে আর ভরপুর বিনোদনে।

পদ্মানদীতেই আয়োজন হয় ঐতিহ্যবাহী বালিশ লড়াইয়ের

এবারের ‘কৃষকের ঈদ আনন্দ’ অনুষ্ঠানটি ধারণ করা হয় মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার দক্ষিণ হলদিয়ায় পদ্মার পাড়ে। যেখান থেকে দেখা যায় নির্মাণ হচ্ছে গর্বের পদ্মা সেতু, আমাদের সক্ষমতার প্রতীক। যেখান থেকে দেখা যায় বাংলাদেশের গর্বের এই ঐতিহাসিক নির্মাণযজ্ঞ।

দক্ষিণ হলদিয়ার এই জনপদ মুখরিত হয় খেলাধুলার এ আনন্দযাত্রায়

পদ্মার পাড়ে দিনভর চলে গ্রামীণ খেলা। যেসব খেলাধুলার সাথে জড়িয়ে আছে আত্মার গভীর সুর। কৃষক মেতে ওঠে তার আপন উৎসবে। আনন্দে জেগে উঠে সমগ্র গ্রামীণ জনপদ।

গ্রামীণ শিশু-কিশোরদেরও অংশগ্রহণ রয়েছে এ আনন্দ উৎসবে

না, এখানে পরাজয়ে নেই গ্লানি, এ তো উৎসব। এখানে সবকিছুতেই শুধু আনন্দ, প্রতি মুহূর্ত পুলক আর বিহ্বলতার।

বিলুপ্ত প্রায় শৈশবের গ্রামীণ খেলাধুলাই আমাদের খুব গহীনে আজও নিবিড়ভাবে জড়িয়ে আছে। আজও যা আমাদের মুগ্ধতার বারতা দেয়।

টানটান উত্তেজনা, জয়ের দিকে প্রত্যেকের গভীর ধ্যান

না, বাদ পড়েনি কৃষাণীও। তাদেরও অংশগ্রহণ ছিলো। ছিলো আনন্দ হাসি গান।

চোখ বাঁধা, তবু থেমে নেই বউ সাজানোর খেলা

কৃষকের ঈদ আনন্দের সাথে ‘তৈলাক্ত কলাগাছ বেয়ে ওঠা’ জড়িয়ে আছে গভীর আনন্দ নিয়ে। প্রতিবার এই খেলায় থাকে দর্শকদের প্রচণ্ড আকর্ষণ।

কৃষকের ঈদ আনন্দ প্রচারিত হবে আজ মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটায় চ্যানেল আই-এ।

চ্যানেল আই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.