শিলইয়ে টাকা ছাড়া মিলছে না টিকাকার্ড

মুন্সীগঞ্জের শিলইয়ে টাকা ছাড়া মিলছে না টিকাকার্ড। কার্ড প্রতি গুণতে হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা। বিশেষ প্রয়োজনে দেড় হাজার থেকে দুই হাজার টাকায় মিলছে টিকা কার্ড। এতে অসহায় হয়ে পড়েছে মুন্সীগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ ।

তারা ধারদেনা করে হলেও চড়া দামে টিকাকার্ড কিনতে বাধ্য হচ্ছে। আর এই সুযোগে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে শিলই ইউনিয়নের পূর্বরাখি,আকালমেঘ ও দেওয়ানকান্দি গ্রামের দায়িত্বে থাকা টিকাদান কর্মী অতিউর আলম মিলন।

পূর্বরাখি গ্রামের রুমা আক্তার অভিযোগ করেন, তার মেয়ে রেহেনা আক্তারের টিকার কার্ড আনতে গেলে পূর্বরাখি কেন্দ্রের টিকাদান কর্মী অতিউর আলম মিলন ২৫০ টাকা দাবি করেন। পরে টাকা দিতে অনিচ্ছা প্রকাশ করলে টিকাদান কর্মী বলেন, ‘সরকারি কোনো টিকা কার্ড নাই। টাকা দিলে আমি এনে দিবো আর টাকা না দিলে সরকার থেকে কার্ড না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করেন। তাহলে আর কোনোদিন কার্ড পাওয়া লাগবে না।’

একই গ্রামের বিপ্লব খান জানান, আমার জন্মনিবন্ধন করার জন্য টিকাকার্ড প্রয়োজন ছিলো। সে সময় টিকাদান কর্মী মিলন আমার থেকে দেড় হাজার টাকার বিনিময়ে টিকাকার্ড প্রদান করেন। তখন অনেকের থেকে উনি (মিলন) দেড়-দুই হাজার টাকার বিনিময়ে টিকাকার্ড বিক্রয় করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে টিকাদান কর্মী অতিউর আলম মিলন টাকা নেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, গত আড়াই বছরে আমি মাত্র ৩৫টি টিকাকার্ড পেয়েছি। বাকি টিকাকার্ড টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করতে হয়েছে।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যোগাযোগ করে জানা যায়, টিকার কার্ডের জন্য টাকা নেয়ার কোনো বিধান নেই।

স্থানীয়রা তদন্ত সাপেক্ষে টিকাদান কর্মী অতিউর আলম মিলনের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবি জানান এবং দ্রুত বিনামূল্যে টিকাকার্ড বিতরণের দাবি করেন তারা।

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.