পাঠক সংখ্যা

  • 7,309 জন

বিভাগ অনুযায়ী…

পুরনো খবর…

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে আহত ২

মুন্সীগঞ্জ সদরের পঞ্চসার ইউনিয়নে নির্বাচন শেষে প্রতিপক্ষের গুলিতে দুইজন গুরুতর আহত হয়েছেন। রবিবার বেলা ৫টার দিকে দেওয়ান বাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. জায়েদুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গুলিবিদ্ধ দুজন হলো, পঞ্চসার ইউনিয়নের রজ্জব আলীর ছেলে মো. ফয়সাল (৩২) ও রিকশাচালক রুহুল আমিন (৪৫)। তার বাড়ি কুড়িগ্রামেরর আলিপুরে। আহত দুইজনকে ঢাকা মেডিক্যালে কলেজে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে পুলিশি অভিযান চলছে।

আহত ফয়সালের খালাত ভাই সিদ্দিকুর রহমান জানান, আহত দুজন এখন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। ডাক্তার বলেছে ফয়সালের ফুসফুসে রক্ত জমাট বেঁধে আছে। শরীর থেকে এখনও গুলি বের করা সম্ভব হয়নি। আর রিকশাচালক রুহুল আমিনের গলা ভেদ করে গুলি বেরিয়ে গেছে। আমরা এখন রুগী নিয়ে ব্যস্ত আছি তাই এ ঘটনায় মামলা করার সুযোগ পাইনি।’

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, সরকারি হরগঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগ কমিটির যুগ্ম সম্পাদক রিয়াদ গুলি ছুড়েছিল।

পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সরকার রোবেল বলেন, ‘নির্বাচনে আমরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছিলাম। ঘটনার দিন ভোট শেষে রিয়াদসহ কয়েকজন লোক রতনপুরের দেওয়ান বাজারের কাছে অবস্থান করছিল। তারা আমাদের দেখেই গালাগাল করতে শুরু করে।’

তারা এসময় আমাদের বলে, তোরা বেঈমান তাই আনারসের পক্ষ নিয়েছিস। এর এক পর্যায়ে, সেখানে উপস্থিত নান্টু একটি পিস্তল বের করে রিয়াদের হাতে ধরিয়ে দিলে সে আমাকে উদ্দেশ্য করে গুলি করে। কিন্তু গুলি আমার গায়ে না লেগে, ফয়সাল ও রিকশাচালকের গায়ে গিয়ে লাগে। ফয়সাল স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক।

পূর্ব শত্রুতা নাকি নির্বাচনি সহিংসতার কারণে গুলি করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে রোবেল বলেন,‘নান্টু ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে হেরে গিয়েছিল। এখন সুযোগ পেয়ে সে এ ক্ষোভ ঝাড়েছে।’

মুন্সীগঞ্জ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহম্মেদ পাভেল বলেন, ‘অভিযুক্ত রিয়াদ হরগঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক। তবে, কারও ব্যক্তিগত শত্রুতার বিষয়ে ছাত্রলীগ দায়ভার নেবে না। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেবো।

মুন্সীগঞ্জ ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল মৃধা বলেন,‘আমরা একটি তদন্ত কমিটি করে দেব। তদন্ত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে রিয়াদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, মুন্সীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসাইন জানান,‘রবিবার দুইজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় এখনও কোনও মামলা হয়নি। ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য রোবেল ও রিয়াদের মধ্যে পূর্বশত্রুতা ছিল। এর জের ধরে রিয়াদ গুলি করেছে। এখনও কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম জানান, ব্যক্তিগত শত্রুতার জের ধরে এক ছাত্রলীগ নেতা গুলি করলে সেটা রিকশাচালকের গায়ে লাগে। ঘটনাটি নির্বাচন রিলেটেড না। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

বাংলা ট্রিবিউন

Leave a Reply

You can use these HTML tags

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

  

  

  

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.