পাঠক সংখ্যা

  • 8,846 জন

বিভাগ অনুযায়ী…

পুরনো খবর…

সিরাজদিখানে নির্মাণের এক মাসের মাথায় সড়কে ভাঙন

সিরাজদিখানে পিচ ঢালাই সড়ক নির্মাণের এক মাসের মাথায় ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। নির্মাণের পর প্রথম বর্ষায় সড়কের কমপক্ষে ৬টি স্থানে ভাঙন দেখা দিয়েছে। উপজেলার বয়রাগাদী ইউনিয়নের ছোটপাউলদীয়া- বাহেরঘাটা গ্রামের উপর দিয়ে যাওয়া এই সড়কটি বিভিন্ন স্থানে ভাঙন ও গর্ত, ফাটল দেখা দিয়েছে। উপজেলা এলজিইডি অফিসের ঠিকমতো তদারকি না থাকায় ঠিকাদারের কাজে অনিয়ম-দুর্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা গেছে, গ্রেডার ঢাকা জিডিপি প্রকল্পের অর্থায়নে ২ কোটি ৩১ লাখ ৪৮ হাজার ৬শ’ ৬১ টাকা ব্যয়ে ছোট পাউলদিয়া থেকে বাহেরঘাটা পর্যন্ত ২৯৭৫ মিটার কার্পেটিং সড়ক নির্মাণ কাজটি করে মেসার্স আরাফাত আজম।

সড়কের বিষয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের কাজী কৌশিক আহাম্মেদকে ফোন দিলে দলীয় প্রভাব দেখিয়ে তিনি তার ক্ষমতার দাপট দেখান এবং বলেন বড় বড় সাংবাদিকদের চেনা জানা আছে। আপনে কোন্‌ পত্রিকায় কাজ করেন।

এলাকাবাসীরা জানান, সড়কের কয়েকটি স্থান চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের কারণে নির্মাণের একমাসের মধ্যেই সড়কটির বিভিন্ন স্থানেই কার্পেটিংয়ের সিলকোড পাথর উঠে গেছে।

মূল সড়কের দু’পাশে ৩ ফিট করে রাস্তা করার কথা থাকলেও কোথাও তা দেখা যায়নি। ভাঙন ঠেকাতে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি এই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে রাস্তার কাজ করায় অল্প বৃষ্টিতে সড়কটি ভেঙে গেছে। এগুলো সরকারি অর্থের অপচয় ছাড়া আর কিছুই নয়। উপজেলার এলজিইডির কর্মকর্তা এবং ঠিকাদারের যোগসাজশে অনিয়ম-দুর্নীতি হচ্ছে বলে এলাকাবাসী জানান।

ঠিকাদার কাজী কৌশিক আহাম্মেদ বলেন, কাজে কোনো ধরনের অনিয়ম করা হয়নি। বর্ষায় টানা বৃষ্টিতে নির্মিত সড়কের কয়েকটি স্থানে ভেঙে গেছে। বৃষ্টির কারণে আর্থিকভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। এখনো কাজ বুঝিয়ে দেইনি। যা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা মেরামত করে বুঝিয়ে দেবো।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী শোয়াইব বিন আজাদ বলেন, বৃষ্টিতে সড়কটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শতভাগ কাজের মান ঠিক রাখা সম্ভব নয়। তবে যতটুকু সম্ভব কাজের গুণগত মান ঠিক রেখেই উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নের জন্য চেষ্টা করা হয়েছে। ঠিকাদারকে রাস্তা ঠিক করে দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

মানবজমিন

Leave a Reply

You can use these HTML tags

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

  

  

  

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.