মুন্সীগঞ্জে ৪৭৮২ প্রবাসীকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি

মুন্সীগঞ্জ জেলার ছয়টি উপজেলায় বর্তমানে ১৫৮ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। গত কয়েক দিনে ৫৩৩ জন হোম কোয়ারেন্টাইন সম্পন্ন করেছেন। সবমিলিয়ে ৬৯১ জন প্রবাসীকে চিহ্নিত করে হোম কোয়ারেন্টাইনে আনা গেছে। গেল ২৪ ঘণ্টায় ৫৭ প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইন সম্পন্ন করেছেন। মুন্সীগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রবাসীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রতিদিন স্বাস্থ্য বিভাগের লোকজন খোঁজখবর নিচ্ছেন। চলতি মার্চ মাসে এই জেলায় বিদেশ প্রত্যাগত সংখ্যা ৫ হাজার ৪৭৩ জন। আর বুধবার পর্যন্ত চিহ্নিত করা গেছে ৬৯১ জনকে। ৪ হাজার ৭৮২ প্রবাসীকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি। তাই এখানে করোনার ঝুকি রয়েই গেছে। জেলায় সাড়ে ৬শ’ বেডের ৩৭টি হাসপাতাল রাখা ছাড়াও শুধু করোনার জন্য ৪২টি বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়াও জেলা শহর ছাড়াও টঙ্গীবাড়ি, লৌহজং, শ্রীনগর, সিরাজদিখান ও গজারিয়া উপজেলাও আইসুলেশন সেন্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জে সকলকে নিজ গৃহে অবস্থান করানোর জন্য সেনাবাহিনী ও পুলিশের টহল অব্যাহত আছে। নিত্য প্রয়োজনীয় মুদি দোকান, কাঁচাবাজার, ফার্মেসী, স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। তবে সকল প্রকার দোকান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, গণপরিবহন ও নৌপরিবহন বন্ধ রয়েছে। বিভিন্ন বাজারে লোকজনের সমাগম বেশী থাকায় সেখানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। গত কয়েক দিনের চেয়ে রাস্তায় লোকজনের সমাগম বেশী লক্ষ্য করা গেছে।

জনকন্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.