ঠাসাভিড় দেখে মুন্সিরহাট বন্ধ করল প্রশাসন

শনিবার হাটবার থাকায় বিপুল লোকের সমাগম দেখে মুন্সিরহাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ অঞ্চলের প্রসিদ্ধ এ হাট সব সময় লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়।

হাটটি বন্ধ করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল কবির জানান, করোনাভাইরাস সংক্রামণ ঝুঁকি থাকার কারণেই হাটটি বন্ধ করতে হয়েছে।

অভিযানে অংশ নেয় সেনাবাহিনী লেফটেন্যান্ট মো. সামিউল বলেন, “করোনার একমাত্র ওষুধ হচ্ছে ঘরে থাকা কিন্তু এই হাটে যেভাবে মানুষজন ভিড় করছিল, এটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা তৈরি হয়েছিল।

“তাই সামগ্রিক অবস্থা বিবেচনা করেই প্রশাসন কঠোর হয়েছে।”

জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, “জনস্বার্থে মুন্সীরহাট বন্ধ করা হয়েছে। কয়েক দিন ঘরে থেকে একটু কষ্ট করলেও সবার জন্যই ভালো।”

হাটের প্রবল ভিড়ের কারণে বাজার কমিটির লোকজনও হিমশিম খাচ্ছিলেন। পরে তারার প্রশাসনকে খবর দেয়।

মুন্সিরহাট বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক রবিউল আউয়াল ওরফে রবি মেম্বার জানান, আগে থেকেই মাইক ব্যবহার করে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হয়। তবে চর এলাকার পাঁটি ইউনিয়নের সাপ্তাহিক হাটবাজার থাকায় লোকজনের সমাগম বেশি হয়।

“পরে সেনাবাহিনী, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট এসে হাট বন্ধ করে দেয়। যাতে লোকজন কেনাকাটা করতে পারে সেজন্য জরুরি কিছু খোলা রাখা হয়েছিল।”

তিনি জানান, বিকাল ৪টা থেকে সব দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বড় আকারের এ বাজারে প্রায় ৪শ’ দোকান রয়েছে। রোববার সকাল থেকে কাঁচা বাজারসহ জরুরি কেনাকাটার দোকান চালু করা হবে। নিরাপদ দূরত্বে থেকেই যাতে কেনাকাটা হয় সে ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিডিনিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.