মুন্সীগঞ্জে খোলা আকাশের নিচে ‘৩ লাখ টন আলু’

করোনাভাইরাস মহামারীর এই সময়ে পরিবহনসহ সবকিছু বন্ধের মধ্যে মুন্সীগঞ্জে অন্তত তিন লাখ মেট্রিক টন আলু খোলা আকাশের নিচে রয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা কৃষি বিভাগ।

সোমবার জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষণ ও উৎপাদন) এবিএম ওয়াহিদুর রহমান বলেন, জেলায় এবার ৩৭ হাজার ৫৯০ হেক্টর জমিতে ১৩ লাখ ২৭ হাজার ২৭ মেট্রিক টন আলু উৎপাদিত হয়েছে।

কৃষক বেশকিছু আলু বিক্রি করতে পারলেও অধিকাংশই এখনও সংরক্ষণ করা যায়নি বলে জানান তিনি।

এ জেলায় সচল ৬৮টি হিমাগারে ধারণ ক্ষমতা ৫ লাখ ৪৩ হাজার মেট্রিক টন। সংরক্ষণকারীরা সেই আলু এখনও হিমাগারে পাঠাতে বা বাজারজাত করতে পারেনি বলছেন তিনি।

এ কৃষি কর্মকর্তা জানান, এ হিমাগারগুলো এখনও অনেকটা ফাঁকা। অনেকে হিমাগারে নেওয়ার জন্য আলু বস্তাবন্দি করে রাস্তার ধারে স্তূপ করে রেখেছে। আবার অনেকে আলু এখনও বস্তাবন্দি করতে পারেনি।

“জমিতে স্তূপ করে রেখে খড়, শুকনো কচুরী এবং পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিয়েছে।”

বর্তমানে প্রতি কেজি আলুর মাঠের দর ১৫ থেকে ১৬ টাকা। খুচরা বাজারে আলু বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা দরে। করোনাভাইরাসের ত্রাণের সাথে আলুযুক্ত করায় কিছুটা উপকার হলেও বিপুল পরিমাণ আলু নিয়ে কৃষক ও সংরক্ষণকারীদের যেন দিশেহারা অবস্থা!

বিডিনিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.