ত্রাণের অভাবে অনাহারে ১১৮ পরিবার

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ যোগনীগাট জামে মসজিদ’সমাজের ১১৮টি পরিবার ত্রাণের অভাবে অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। ছোট এই সমাজের অধিকাংশ মানুষ দিন এনে দিন খায়। কোনো উচ্চ শিক্ষিত ও বিত্ত্ববান না থাকায় বড় দুর্যোগের মধ্যে পরেছে তারা। বুধবার এলাকা ঘুরে দেখা যায় সমাজের অনেক নারী পুরুষ রাস্তায় দাড়িয়ে সাহায্যের অপেক্ষা করছেন।

একাধিক মহিলা অভিযোগ করে বলেন, এই সমাজের পরিবার গুলো বড় অসহায়ভাবে দিন কাটাচ্ছে। এখানে হিন্দু-মুসলিম একসাথে বসবাস করে আসছে সবসময়। সরকারী ত্রাণ এলে দায়িত্বরত কমিশনাররা বলে তোমরা মহিলা কমিশনারের কাছে যাও আর মহিলা কমিশনারের কাছে গেলে বলে তোমাদের ত্রাণ পুরুষ কমিশনাররে কাছে দেয়া হয়েছে।

এ অবস্থায় সমাজের মানুষ কোনো উপায়ন্তর না পেয়ে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন। তার সাথে অনুরোধ জানিয়েছেন, যাদের মাধ্যমে এই দক্ষিণ যোগনীঘাট মহল্লার ত্রাণ বিতরণের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তাদেরকে এ সমাজ প্রধান ও মুরব্বিদের সাথে যেন যোগাযোগ করে ত্রাণ বিতরণ করেন। আর দেশ-বিদেশের বিত্তবানদের অনুরোধ করছেন সাহায্যের জন্য।

‘দক্ষিণ যোগনীঘাট জামে মসজিদ’র সমাজ প্রধান রহম আলী গাজী ও শাহজালাল মোল্লা এবং দক্ষিণ যোগনীঘাট জামে মসজিদের সভাপতি মো. মাসুদ রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমগীর মোল্লা বিত্ত্ববানদের প্রতি অনুরোধ করেছেন ত্রাণ নিয়ে এই সমাজবাসীর পাশে দাড়াতে।

এখানকার নির্বাচিত কমিশনার শহিদুল ইসলাম যুক্তরাষ্ট্রে থাকায় তার কাছ থেকে ত্রাণ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

মহিলা কমিশনার মোর্শেদা ইসলামের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মেয়রের সাথে তার সম্পর্ক ভালো না। অপরদিকে তার কাছে তেমন কোনো সাহায্য আসছে না। মেয়রের পক্ষ থেকে যে সাহায্য পাঠানো হয় তা তাদের পছন্দ অনুযায়ী লোকদেরকেই দেয়া হয়। যাদের সাহায্যের প্রয়োজন তারা পাচ্ছেনা।

আব্দুস সালাম
নয়া দিগন্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.