করুনা করো প্রভু – জসীম উদ্দীন দেওয়ান

সৌভাগ্যের রাতে, তোমার আরশ হতে,
রহমতের দৃষ্টি পরুক, তোমার সৃষ্টিতে।
পথভ্রষ্ট হলেম, আমরা সবে জালেম।
নির্দেশনা কতো, অমান্যে শত শত।
যতই পাপি হই, তবুওকি তোমার নই?
তোমারইতো সবে সৃষ্টি।
ফিরিয়ে নিয়ে কঠিন দৃষ্টি,
রহমতের হাত বাড়িয়ে দেওয়া,
ইতিহাস মিলে তোমার কৃষ্টি।
এবেলা কেন এমন হলে,
নির্মম সাজা ঢেলে দিলে?
মসজিদে আযান হয়, জামাতে তবুও নামাজ নয়।
এ কেমন ইশারা তোমার, তবে কার পরাজয়!
মোসাফা নেই, নাই কোলাকুলি।
দুরে সরে থাকে সবে, ইসলামের গেলো খুলি!
দূরে থাকা মানে যদি, হয় ভালো থাকা।
মিলে মিশে বসবাস নাই, আদি যুগ দেখা।
সুখ যদি মুছে মোদের,
তুমি কেমনে সুখি?
সৃষ্টির পাজর ভেঙে,
স্রষ্টার সুখ আঁকি।
আর নয় অভিমান, ওগো দয়াময়,
সিয়াম সাধনের আগেই,
ওমরা শুরু হয়।
গরীবের হজ্বের স্বাদ,জুম্মাতে মিলে।
মুসল্লীদের সরগরম হবে,
তুমি রহম দিলে।
বিশ্বকে নি:স করে, কেন জয়ের গান।
পাপ মোদের মুছে দিয়ে ভাঙো অভিমান।
ধরার বুকে দু:খের সাগর,
আরশ সুখি নয়।
বান্দারা ভীত স্বরে আর্জিতে কয়।
মোনাজাতে বলি তাতে, তুমি দয়াময়।
নিজের সৃষ্টির বিচার বুঝি, এমন কঠিন হয়!
পাপের সাগরে ডুবি, পাহাড় সম পাপ।
রহমতের বর্ষণে ধুয়ে উত্তাপ।
আমরা হাসলে জানি, তুমি তব হাসো।
ভ্রান্ত পথ থেকে তুমি, টেনে নিয়ে আসো।
করুনা করো প্রভু, পিষিয়ে করোনা।
তোমার করুনা ছাড়া, বান্দা বাঁচবেনা।
স্বাস্থ্য ঝুঁকি, অর্থ ঝুঁকি, বিশ্ব জুড়ে বয়।
খাদ্য সংকটে আবার মানুষ ঘরময়।
এখুনি যদি না ভাঙো তোমার অভিমান।
সুখের বিশ্ব তবে নি:স হবে, হয়ে খান খান।
সৌভাগ্যের রজনীতে, ফের হাত তুলি।
পাপিদের পাপ গুলি, যাও তুমি ভুলি।
আতঙ্ক ক্ষনে ক্ষনে কতো কাল যাবে।
ভরসা আছে বেশ, প্রভু বুকে নিবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.