করোনায় মুন্সীগঞ্জে একজনের মৃত্যু, পরিবারের ৫ সদস্য কুর্মিটোলায় ভর্তি

ঢাকায় মুন্সীগঞ্জের একটি পরিবারের ৬জন সদস্যের সকলেই এই মহামারি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ইতিমধ্যে পরিবারের একমাত্র উপার্জক্ষম ব্যক্তিটি কুর্মিটোলা হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন। বাকীরাও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সোমবার ভোরে ঢাকা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করে। জানাজা শেষে ঢাকার তালতলা কবরস্থানে দাফন করা হবে।

পারিবারিক সূত্র থেকে জানা যায়, মুন্সীগঞ্জ জেলার টংগীবাড়ি যশলং নিবাসী ওই ব্যক্তি গত ১০ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হন। পরে ১৩ এপ্রিল তাকে ঢাকা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করালে সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের আইশোলেসনে ছিলেন। মৃত্যুর সময় তাঁর বয়স ৬০ বছর। তার স্ত্রী, এক ছেলে ও দুই মেয়ে এবং কাজের মেয়েও এই মহামারি নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে জানিয়েছেন তার নিকটাত্মীয়। তিনি ঢাকার গেন্ডারিয়ায় বসবাস করতেন। ঢাকায় তার ডিজিটাল কাপড়ের প্রিন্টিংয়ের ব্যবসা রয়েছে।

নিহতের ভাগিনা যশলং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল দেওয়ান জানান, ১০ এপ্রিল অসুস্থ্য হয়ে তার মামা ও তার বড় মেয়ে কুর্মিটোলায় ভর্তি হন। পরের দিনই ১১ এপ্রিল অসুস্থ্য হয়ে পুনরায় তার স্ত্রী, ছোট মেয়ে, ছেলে এবং কাজের মেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে কুর্মিটোলায় ভর্তি হন। পরিবারের ৬ জন সদস্যের সকলেই করোনা আক্রান্ত হয়ে কুর্মিটোলায় ভর্তি হয়েছেন।

তিনি আরো জানান, পাঁচ জনের রিপোর্ট পজেটিভ আসলেও তার স্ত্রীর রিপোর্ট এখন পর্যন্ত তার পরিবারের হাতে আসেনি। সকলের আইইডিসিয়ারের রিপোর্ট হাতে আসলেও তার স্ত্রীর রিপোর্ট হাতে না পেয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তার পরিবার। বড় মেয়ে একটু সুস্থ্য হলেও তার স্ত্রীর অবস্থার অবনতি হচ্ছে।

নয়া দিগন্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.