খাদ্যসামগ্রী বিতরণে নজির রাখছেন অতিরিক্ত আইজিপি মাহবুব হোসেন

নজির স্থাপন করেছেন পুলিশের বিশেষ শাখায় (এসবি) কর্মরত অতিরিক্ত আইজিপি মাহবুব হোসেন। লাইনে দাঁড়ানো বা জমায়েত নয়, করোনার কারণে বিপাকে পড়া মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছেন খাদ্যসামগ্রী। মুন্সীগঞ্জ জেলার মীরকাদিম ও রামপালে এ কাজে নিয়োজিত আছে ২১ সদস্যের বিশেষ স্বেচ্ছাসেবকদল।

`সাহায্য নয়,সামাজিক দায়বদ্ধতা’ অতিরিক্ত আইজিপি মাহবুব হোসেন এই স্লোগানের মাধ্যমে বৃত্তবান, সামর্থ্যবান ও সমাজের এগিয়ে থাকা শ্রেণীকে জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন। গত কয়েকদিনে দুহাজার একশ পরিবারের কাছে খাদ্যসামগ্রী ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম পৌঁছে দিয়েছে স্বেচ্ছাসেবকদলের কর্মীরা। যারা লজ্জায় মানুষের কাছে হাত পাততে পারেন না, তারা যেন অনাহারে না থাকেন কর্মীদের সেদিকে খেয়াল রাখতে বলেছেন অতিরিক্ত আইজিপি মাহবুব হোসেন। এমনকি খাদ্যসামগ্রী বিতরণের সময় কোনো ছবি তুলতেও বারণ করেছেন তিনি।

২১ সদস্যের এই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে আছেন স্থানীয় বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম। এছাড়া সিয়াম, সাইদ, রুবেল, তানভীর, কনিক, আনিসা , হালিমা, দিপা, আমেনা, ইভা ও নাজনীনরাও কাজ করছেন এই দলে। যারা রাতদিন শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন অসহায় মানুষের কল্যাণে। খাদ্যসামগ্রী কেনাকাটা করা, সেগুলো আলাদা আলাদা প্যাকেট করা এবং শেষে সেগুলো মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছেন তারা।

সাইফুল ইসলাম বলেন,‘মাহবুব হোসেন স্যারের নির্দেশ আছে কেউকে যেন ত্রাণের জন্য লাইনে দাঁড়াতে না হয়। ঘর থেকে বের হতে না হয়।’

তিনি বলেন, ‘ত্রাণ বিতরণের সময় কারো ছবি তুলতে স্যার নিষেধ করেছেন। কারণ এখন অনেকেই আছেন যারা হত দরিদ্র নয়। যারা কর্মহীন হয়ে পড়েছেন । তারা লজ্জায় খাদ্য সামগ্রী নিতে চান না। তাই তাদের ছবি তুলতে নিষেধ করেছেন তিনি।’

ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের কাজ সব সময় নজরদারিতে রেখেছেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মাহবুব হোসেন। নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকেও নিয়মিত করোনাভাইরাস ঠেকাতে প্রয়োজনীয় সচেতনতামূলক বার্তা প্রচার করছেন তিনি।

ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.