করোনা রোগীর মায়ের মৃত্যু: পিপিই পাঠিয়ে সৎকার করালো প্রশাসন

মুন্সীগঞ্জ শহরের জগধাত্রী এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের করোনায় আক্রান্ত ছেলের বৃদ্ধা মা (৬০) শনিবার সন্ধ্যার পর স্ট্রোক করে মারা যান। মরদেহ সৎকার কাজে কেউ এগিয়ে আসছিলো না। পরে জেলা প্রশাসন পিপিই পাঠিয়ে সৎকারের ব্যবস্থা করে, রাত ১১টার পরে মরদেহ দাহ করা হয়।

শনিবার (২ মে) রাতে শহরের জগধাত্রী পাড়ার ভাড়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

করোনা পরিস্থিতিতে জেলায় বর্তমানে কোন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও সেভাবে গড়ে উঠেনি। তাছাড়া যারা সৎকারের কাজ করেন তারাও পিপিই’র অভাবে সাহস পাচ্ছেন না এগিয়ে আসার। কেউ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে স্বেচ্ছাসেবী খোঁজ করছেন, অনেকেই আবার সাহস জোগাচ্ছেন অনুরোধ করে এগিয়ে আসার। এ অবস্থায় পিপিই সরবারাহ করে সব ব্যবস্থা করে দিয়েছেন জেলা প্রশাসন।

শহরের বাসিন্দারা জেলা প্রশাসনের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফারুক আহম্মেদ রাইজিংবিডিকে জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইনে এমন পরিস্থিতিতে মৃত মুসলমানের দাফনের ব্যাপারে গাইডলাইন থাকলেও হিন্দুদের সৎকারের জন্য কিছু বলা হয়নি। শনিবার করোনা আক্রান্তের ব্যক্তির মা মারা যাওয়ার পর কেউ এগিয়ে আসছিলো না। তখন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদকে অবগত করলে তারা পিপিই প্রয়োজনের কথা জানায়। তখন আমরা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে এসব সরবরাহ করি।#

রাইজিংবিডি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.