পুলিশকে পিটিয়ে বাবা কারাগারে, ছেলের জামিন

নাসির উদ্দিন উজ্জ্বলঃ মুন্সীগঞ্জে পুলিশকে মারধরের ঘটনায় সোনারং-টঙ্গীবাড়ি ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আহসান কবির খান (৬০) ও তাঁর ছেলে মো. নাসের খানকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

টঙ্গীবাড়ি থানার পুলিশ কনস্টেবল মো. তানজিল হোসেনকে (৩০) মারধরের ঘটনায় বৃহস্পতিবার (১৪ মে) গভীর রাতে তাদের গ্রেফতার করে মুন্সীগঞ্জে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

শুক্রবার( ১৫ মে) বিকেলে মুন্সীগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন শুনানি শেষে আহসান কবির খানকে জেল হাজতে প্রেরণ এবং পুত্র মো. নাসের খানের জামিন মঞ্জুর করেন আদালত।

টঙ্গীবাড়ি থানার ওসি শাহ মো. আওলাদ হোসেন জানান, পথরোধ করতঃ সরকারি কর্মচারীকে তার কর্তব্য পালনে বাধাদানের নিমিত্তে আক্রমণ ও অপরাধমূলক বল প্রয়োগ করে হত্যার উদ্দেশে স্বেচ্ছাকৃতভাবে সাধারণ ও গুরুতর আঘাত, চুরি, ক্ষতি সাধন ও হুমকি দানের অপরাধে ৩৪গ, ১১৪, ১৮৯, ৩০৭, ৩৩২, ৩৩৩, ৩৫৩ ও ৩৭৯ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে।

আহত পুলিশ কনস্টেবল মো. তানজিল হোসেন নিজে বাদী হয়ে টঙ্গীবাড়ি থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন। আহসান কবির খানকে এই মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে। এই মামলায় মোট চারজন আসামি।

ওসি জানান, আহত এই কনস্টেবল মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয়ে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

ওসি আরও জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া ৬টার দিকে বাড়ি থেকে ডিউটিতে থানায় আসার পথে রাস্তায় এই কনস্টেবলকে গতিরোধ করে প্রধান আসামি বলে- “করোনার মধ্যে যখন তখন বাড়ি থেকে বের হওয়ায় আমাদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে। কালকের মধ্যে বাড়ি ছেড়ে দিতে হবে।” তখন কনস্টেবল বলে- নিরাপত্তার চিন্তা শুধু আপনাদের নয় আমাদেরও আছে। আর বাড়ির মালিক তো আপনি নন, আপনি কেন এমন আচরণ করছেন? এর পরই মারধর শুরু করে।

মুন্সীগঞ্জ কোর্ট ইন্সপেক্টর জামাল উদ্দিন জানান, মুন্সীগঞ্জের বিশেষ আদালতে আসামিদ্বয়কে শুক্রবার বিকেলে হাজির করা হয়। পরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এমদাদুল হকের আদালতে জামিন শুনানি হয়। অসুস্থতার কারণে পুত্র মো. নাসের খানের জামিন মঞ্জুর হয়। তবে প্রধান আসামি আহসান কবির খানকে আদালত জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ প্রদান করেন।

সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.