শ্রীনগরে সেচ প্রকল্প বন্ধ হলে ক্ষতি হবে ফসলি জমির

শেখ মোহাম্মদ রতন: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়নের উত্তর সেলামতি, দক্ষিণ সেলামতি ও মত্তগ্রামের বিলে শতাধিক কৃষকের প্রায় ৫০ একর ফসলি জমি রয়েছে।

এ জমিগুলো বর্ষার মৌসুমে পানিতে তলিয়ে যায়। পানি শুকিয়ে গেলে জমিগুলোয় ইরিধানের একটিমাত্র ফসল ফলান কৃষক। বোরো মৌসুমে ফসলি জমিতে পানিতে দেওয়ার জন্য সেলামতি গ্রামের মৃত গিয়াস উদ্দিনের ছেলে রিয়াজ উদ্দিনের একটিমাত্র সেচ প্রকল্প রয়েছে।

এ সেচ প্রকল্পের মাধ্যমে জমিতে পানি দেওয়ায় ফলন ভালো হয়। ফসলি জমির ওপর দিয়ে সেলামতিতে দুলাল মিয়ার বাড়ি থেকে রিয়াজ উদ্দিনের সেচ প্রকল্প পর্যন্ত একটি রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে। রাস্তাটি নির্মাণ করা হলে শতাধিক কৃষকের প্রায় ৫০ একর জমির ফসল আবাদ ব্যাহত হবে বলে কৃষক মো. হারুন জানান।

এ ব্যাপারে ফসলি জমির ক্ষতিগ্রস্ত মালিকদের স্বাক্ষর নিয়ে সেচ প্রকল্পের মালিক রিয়াজ উদ্দিন রাস্তাটি বন্ধের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রীনগর বরাবরে একটি লিখিত আবেদন করেন।

কৃষক হারুন আরও জানান, রাস্তাটি ইব্রাহীম ব্যাপারী নিজের বাড়িতে যাওয়ার সুুবিধার জন্য নির্মাণ করছেন। রাস্তাটি নির্মাণ করা হলে সুবিধার চেয়ে অসুবিধাই বেশি হবে বলে দাবি করেন ফসলি জমির ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।

এ ব্যাপারে উপজেলার শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ও রাস্তা নির্মাণের সভাপতি শাহ আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুই বছর আগেই এ রাস্তায় মাটি ফেলা হয়েছে। তখন তো কেউ বাধা দেয়নি। আমি রাস্তাটি এমনভাবেই করব, যাতে কারও ফসলি জমির কোনো ক্ষতি না হয়।

প্রত্যেক জমির মালিকদের ডেকে বলেছি, আপনারা পাইপ নিয়ে আসেন। আমি রাস্তা নির্মাণের সময় জমিতে পানি যাওয়ার জন্য পাইপ দিয়ে দিই। আর রাস্তা নির্মাণ হলে তো সবারই সুবিধা।

শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইব্রাহীম ব্যাপারীর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জনগণের সুবিধার জন্য আমি এমপির বরাদ্দের এ রাস্তাটি নির্মাণ করছি। এ রাস্তা দিয়ে সেলামতি ও মত্তগ্রামের শত শত মানুষ আড়িয়াল বিলে ও শ্রীনগরে যাতায়াত করে। রাস্তা নির্মাণে তারাই বাধা দিচ্ছে, যারা গত কমিটিতে ছিল কিন্তু এবার নেই।

এ ব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ রহিমা আক্তার বলেন, কোনোভাবেই কৃষিজমি নষ্ট করা যাবে না। আমি এ ব্যাপারে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসারের সঙ্গে আলোচনা করে সরেজমিনে গিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

শেয়ার বিজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.