মুন্সিগঞ্জে মহল্লায় মহল্লায় শোক দিবস, বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশিলবদের বিচার দাবী

মুন্সিগঞ্জে জাতীয় শোক দিবসে চাল ও মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে লৌহজং উপজেলার খিদিরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ থেকে এই চাল ও মাস্ক বিতরণ করা হয়। ইউনিয়ন পরিষদ অডিটোরিয়ামে দরিদ্রদের মাঝে এই মানবিক সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি কোরআনখানি, দোয়া মাহফিলেরও আয়োজন করা হয়। জাতীয় শোক দিবসে পুরো জেলাব্যাপী ছিল দিনভর নানা আয়োজন।

জেলার সকল সরকারি, আধাসরকারী, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়। সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধুর স্থায়ী মুর‌্যাল নির্মাণের জন্য প্রস্তাবিত পুরনো ডাকবাংলো সংলগ্ন স্থানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করে সর্বস্তরের মানুষ। এ সময় এ মিনিট নীরবতা পালন ও মোনাজাত করা হয়। এরপর বেলা ১১ টায় ‘আগস্টের ঘৃণ্যতম হত্যাকাণ্ড, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ” জুম অ্যাপসের মাধ্যমে ভার্চুয়াল আলোচনা হয়। বাদ জোহর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শাহাদাত বরণকারী শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনায় জেলার সকল মসজিদ ও মসজিদ ভিত্তিক গণশিক্ষা কেন্দ্রগুলোতে কোরআনখানি, মিলাদমাহফিল ও মোনাজাতের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া মুন্সিগঞ্জ শহর জামে মসজিদ ও মুন্সিগঞ্জ কালেক্টরেট জামে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এছাড়া ধর্মীয় উপাসনালয় মন্দির, গির্জা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে ভার্চুয়ালভাবে আয়োজিত সরকারি আলোচনাটিতে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যাকারী সকলের বিচারের রায় কার্যকর ছাড়াও এই হত্যাকাণ্ডের কুশিলবদের বিচারের দাবী উঠেতে। এতে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা মুন্সিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, মুন্সিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস।

জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদারের সভাপতিত্বে আরও আলোচনা করেন পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ, সরকারি হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আব্দুল হাই তালুকদার, মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সুভাষ চন্দ্র হীরা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক কুমার রায়, মুন্সিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব, পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন, মুন্সিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শাহিন মো. আমানুল্লাহ, হিন্দু বৌদ্ধ খিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট অজয় চক্রবর্তী ও জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মেহেরুন্নেসা নাজমা প্রমুখ।

টঙ্গীবাড়ি ও লৌহজং উপজেলায় শোক দিবসের আয়োজনগুলোতে যোগ দেন অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি। মুন্সীগঞ্জ সদর ও গজারিয়ার শোক দিবসের নানা আয়োজনে যোগ দেন অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি। এছাড়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন শোক দিবসের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেন। শহরে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জেলা ও সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শোক দিবসের নানা আয়োজন এবং গণভোজের আয়োজন করে। জেলা শহরের বাইরে পাঁচটি উপজেলায়ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শোক দিবসের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ’৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির জেলা শাখার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এম কাদের মোল্লার নেতেৃত্বে শোক দিবস পালিত হয়।

মুন্সিগঞ্জ জেলা শহরের বাইরেও উপজেলা পর্যায়ে টঙ্গীবাড়ি, লৌহজং, শ্রীনগর, সিরাজদিখান ও গজারিয়া উপজেলায় শোক দিবসের বিস্তারিত কর্মসূচি পালিত হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর এই শোক দিবসটিতে কভিডের কারণে নানা রকম চ্যালঞ্জ সত্তে¡ও জেলার মহল্লায় মহল্লায় শোক বিদস পালন করা হয়। এতে নমুন প্রজন্মের মানুষের অংশ গ্রহণ ছিল লক্ষ্যনীয়। এদিকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জেলা প্রশাসন থেকে ভার্চুয়াল কুইজ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেছেন জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার। খিদিরপাড়ায় চাল ও মাস্ক বিতরণের আয়োজনটিতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা খিদিরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ মো. আনোয়ার হোসেন বেপারী।

সময় টিভি নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.