মুন্সীগঞ্জ পৌর মেয়রের উদ্যোগ নারীদের সেবার জন্য আধুনিকতা ও ধর্মীয় আবহে পরিপূর্ণ “অঙ্গনা”

কাজী সাব্বির আহমেদ দীপু: “অঙ্গনা” মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার নারীদের সেবার জন্য সম্মানজনক উদ্যোগ, যা অনন্য বিরল দৃষ্টান্ত। নারী সমাজ চলার পথে অজু, ড্রেস পাল্টানো, নামাজপড়াসহ অনেক গুরুত্বপুর্ণ কাজগুলো করতে পারবে। শৌচাগারও রযেছে এখানে। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লবের দিক-নির্দেশনায় আধুনিকতা ও ধর্মীয় আবহে পরিপূর্ণ “অঙ্গনা” এখন তা নান্দনিকতায় পূর্নতা লাভ করেছে।

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভা জনপ্রিয় মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। শহরস্থ জেলা স্টেডিয়াম সংলগ্ন সড়কে পুলিশ সুপারের বাসভবনের পাশে নির্মিত এ স্থাপনা দেখতে (৮ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার বিকেলে নারীদের সেবার জন্য সম্মানজনক এ উদ্যোগ আধুনিকতা ও ধর্মীয় আবহে পরিপূর্ণ “অঙ্গনা” পরিদর্শন করেন বঙ্গবন্ধুর মহিউদ্দিন খ্যাত মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন উদ্যোক্তা ও বাস্তবায়নে নেতৃত্বে থাকা পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৫ মে মুন্সীগঞ্জের সাবেক জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা ও পৌর মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লবের যৌথ উদ্যোগে এবং মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার নিজস্ব অর্থায়নে শহর ও শহরাঞ্চলের নারী সমাজের দীর্ঘ দিনের চাওয়া (লেডিস টয়লেট)। পৌর মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লবের দিক-নির্দেশনায় আধুনিকতা ও ধর্মীয় আবহে পরিপূর্ণ “অঙ্গনা” এখন তা নান্দনিকতায় পূর্নতা লাভ করেছে বলে জানিয়েছেন পৌরসভার নারী কাউন্সিলর নার্গিস আক্তার।

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভ মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব জানান, শুধু মাত্র নারী সমাজের কথা বিবেচনা করে মুন্সীগঞ্জে প্রথমবারের মত ও আধুনিকমানে অঙ্গনাকে রূপ দেওয়া হয়েছে। এই অঙ্গনায় আছে নারীদের জন্য অযুখানা ও নামাজের স্থান, ড্রেসিং রুম, সাজসজ্জা কক্ষ ও শৌচাগার। শহরস্থ জেলা স্টেডিয়াম সংলগ্ন সড়কে পুলিশ সুপারের বাসভবনের পাশে নির্মিত এ অঙ্গনাকে আধুনিকতার ছোঁয়া ও ধর্মীয় আবহে নির্মাণ করা হয়েছে।

গ্রাম নগর বার্তা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.