সিরাজদিখানে জোর করে অন্যের জমির মাটি কেটে বিক্রি ও বালু ভরাট করে দখল করছে অনুমোদনহীন ভেনাস লেকভিউ

নাছির উদ্দিন: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে বালুচর ইউনিয়নের চর পনিয়া গ্রামের অন্যের জমির মাটি কাটছে সাবেক এক ইউপি সদস্য ও তার একটি সন্ত্রাসী গ্রুপের নেতৃত্বে। ব্যক্তিমালিকানা তিন ফসলি জমির মাটি জোর করে কেটে তা ইট ভাটায় বিক্রয় ও সেই জমিতে বালু ভড়াট করে দখল করছে অনুমোদনহীন ভেনাস লেকভিউ ল্যান্ডমার্ক লিমিটেড। বালু ভড়াটকে কেন্দ্র করে চর পানিয়া এলাকায় জুলুমের রাজত্ব কায়েম করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিষ্ঠানের এমডি কোন্ডা ইউপি সাবেক সদস্য জব্বার মেম্বারের বিরুদ্ধে । কেউ বাধা দিতে আসলেই তাদের উপরে নেমে আসছে অত্যাচার ও হুমকি। এমতাবস্থায় বাপ-দাদার ভিটে মাটি হারানোর আশঙ্কায় সাধারণ মানুষের চোখের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।

সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে, দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানর কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য জবাব্বার মেম্বারের নেতৃত্বে ভেনাস লেকভিউ ল্যন্ডমার্ক লিমিটেড সরকারী ভিপি সম্পত্তি, ব্যক্তি মালিকানার জমি জোর পূর্বক মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রয় করে সেই যায়গা জোরপূর্বক বালু দিয়ে ভড়াট করছে। ভরাটকৃত জায়গায় বেশ কয়কটি বড় আকারে ভেনাস লেকভিউ ল্যান্ডমার্ক লিমিটেড সাইবোর্ড লাগানো হয়েছে। সাংবাদিকদের দেখে এসময় এগিয়ে আসেন ভূক্তভোগী নজরুল, রহমত আলী আয়শাসহ আরো বেশ কয়েকজন। তারা বলেন ভেনাস লেকভিউ ল্যান্ডমার্ক লিমিটেড তাদের মালিকানা জায়গা জোর পূর্বক ভেকু দিয়ে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে এবং বালু ভরাট করে দখল করছে। এতে তারা বাঁধা প্রদান করলে স্থানীয় জব্বার মেম্বার সহ একটি মহল তাদেরকে বিভিন্নভাবে জুলুম অত্যাচার করছে।

ভুক্তভোগিরা অভিযোগ করেন, দিনে বাধা দিলে রাতে ভিন্ন রুপে হয়রানী শুরু হয়। রাতের বেলায় দুইটি ভেকু ও দশ বারটি ট্রাক ও মাহিন্দ্রা দিয়ে জমির মাটি কেটে তারা ইট ভাটায় পাঠায়। স্থানীয় অনেকেই থানায় অভিযোগ করার পরেও কোন প্রতিকার পায়নি।

ভুক্তভোগি জহির উদ্দিন বলেন, আমার মালিকানাধিন চরপানিয়া মৌজার আরএস ১৯৫, ১৪২, ২০৩ খতিয়ানের এবং আরএস ৩৫২৩দাগের ১০৪শতাংশ যায়গা থেকে গত ০২/১২/২০২০ইং তারিখ ৩০ শতায়শ জমির মাটি দৈর্ঘ্য ৫২৮ফুট, প্রস্থ্য ২৫ফুট ও ৭ফুট গভীর করে ভেকু দিয়ে প্রায় ৭লক্ষ টাকার মাটি কেটে নিয়ে যায় জব্বার মেম্বার। এসময় আমি মাটি কাটায় বাধা প্রদান করলে জব্বার মেম্বারের নেতৃত্বে তার সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকে বেধম মারধর করে এবং জব্বার মেম্বার এগিয়ে এসে তার হাতে থাকা পিস্তল ঠেকায় আর জমি থেকে চলে যেতে বলে না গেলে জমিতেই মেরে পুতে রাখবে বলে হুমকি দেয়। আমি কোন মতে জিবনে বেচে বাড়িতে ফিরে সিরাজদিখান থানায় অভিযোগ করি পুলিশ এসে বাধা প্রদান করলেও তা না শুনে সে মাটি কেটে নিয়ে গেলে আমি মুন্সীগঞ্জ কোর্টে মামলা করি। যাহা সি.আর মামলা নং-২০৫১/২০২০।

ভেনাস লেকভিউ লিমিটেডের এমডি মোঃ জব্বার বলেন, আমি আমার জায়গার মাটি কেটেছি। আমি কারো যায়গার মাটি কাটি নাই আর আমি কাউকে কোন পিস্তল ধরিনাই আমার উপর আনা অভিযোগ মিথ্যা।

সিরাজদিখান থানার অফিসার্স ইন চার্জ মোঃ রিজাউল হক বলেন, এবিষয়ে আমি অবগত নই। যদি এমন কোন মাটি কাটার ঘটনা ঘটে থাকে তবে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়াম্যান সাইদুল রহমান চৌধুরী বলেন, আমার কাছে এলাকাবাসী জব্বারের বিরুদ্ধে ৪টি/৫টি অভিযোগ করেছে। আমি অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমার পরিষদ থেকে তাকে বার বার নোটিশ করলেও সে পরিষদে উপস্থিত হয়নি। সে স্থানিয় কিছু রংবাজ নিয়ে চরের মধ্যের বসে থাকে। তার বিরুদ্ধে কেরানীগঞ্জ থানায় এ ভুক্তেভোহী অভিযোগ করলে তাকে থানার এসআই ফোনে দেখা করার কথা বল্লে, সে বলে আমি কি বিপু সাহেব কে নিয়ে আসব। এটি সুনে সে এসআই তাকে কোন ফোনই দেয়নি।

সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম বলেন, এবিষয়ে কেও কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.