টঙ্গীবাড়ীতে ঘুষ নিয়ে ধর্ষণ মামলায় বাধা, গ্রাম্য মাতবর গ্রেপ্তার

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় এক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় স্থানীয় গ্রাম্য মাতবর হারুন জমাদ্দার (৬০) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার বিদগাওঁ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে টঙ্গীবাড়ী থানা পুলিশ।

এর আগে, গতবছর ৪ই ডিসেম্বর সন্ধ্যায় উপজেলার দূর্গম চরাঞ্চলের বিদগাওঁ গ্রামের প্রতিবন্ধী তরুণীকে ফুসলিয়ে খেলার মাঠের নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে স্থানী আজিজুল মৃধার ছেলে রাসেল মৃধার (১৮) বিরুদ্ধে।

ধর্ষিতা ও তার পিতা নুরু শিকদার এবং তার বোন ঘটনার পরের দিন সকালে মামলা করার জন্য টঙ্গীবাড়ী থানায় আসার জন্য নিজ বাড়ি হতে রওনা হয়। কিন্তু স্থানীয় গ্রাম্য মাতবর হারুন জমাদ্দার (৬০) এবং মজিবুর মৃধা (৪০) ধর্ষিতার পরিবারকে বিচারের আশ্বাস দিয়ে তাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেন। এরপর ১০দিন ধর্ষিতার পরিবারকে বিভিন্নভাবে তাদের বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষকের নিকট হতে মীমাংসা করার আশ্বাস দিয়ে ঘুষ গ্রহণ করে ধর্ষিতার পরিবারকে বিভিন্ন হুমকি প্রদান করেন।

ঘটনাটি টঙ্গীবাড়ী থানার দুর্গম চরাঞ্চলর হওয়ায় পুলিশ বিষয়টি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে ধর্ষিতা ও তার পরিবারকে থানায় নিয়ে আসেন। পরবর্তীতে প্রতিবন্ধী ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে ধর্ষক রাসেল মৃধা এবং গ্রাম্য মাতবর হারুন জমাদার ও মজিবর মৃধার নামে টঙ্গীবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পরে টঙ্গীবাড়ী থানা পুলিশ ধর্ষণকারী ও ওই দুই বিচারকের নামে নিয়মিত মামলা রুজু করেন।

এ বিষয়ে টঙ্গীবাড়ী থানার ওসি হারুন অর রশিদ জানান, ‘গ্রাম্য বিচারক হারুন জমাদ্দারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.