মুন্সিগঞ্জে পৌঁছেছে করোনার টিকা

রিয়াদ হোসাইন: মুন্সিগঞ্জে প্রাথমিকভাবে করোনা ভাইরাসের ৪৮ হাজার ডোজ টিকা সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে পৌঁছেছে। শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বেক্সিমকো ফার্মার শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত একটি কাভার্ড ভ্যানে করে এসব টিকা মুন্সিগঞ্জে আসে। টিকা হাতে পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুন্সিগঞ্জ সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ।

সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্র জানায়, আপাতত এসব টিকা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ওয়াক ইন কুলার (ডব্লিউআইসি) বা হিমায়িত কক্ষে ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি জেলা-উপজেলা পর্যায়ের চিকিৎসকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। পরবর্তীতে টিকাকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এই জেলায় টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করা হবে।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘মোট ৪৮ হাজার ডোজ টিকা আমরা পেয়েছি। প্রথম ধাপে ফ্রন্ট লাইনের ব্যক্তিরা এই টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে আমরা টিকাদান কর্মসূচি শুরু করব। এ পর্যন্ত টিকা নিতে আগ্রহী সরকারি বিভিন্ন বিভাগের ২০ হাজার জনের তালিকা আমরা হাতে পেয়েছি। তবে টিকা নিতে আগ্রহী ব্যক্তিদের সুরক্ষা অ্যাপসের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, করোনার টিকা সংরক্ষণ, ব্যবস্থাপনা, টিকা পাবেন এমন ব্যক্তিদের তালিকা প্রণয়নসহ যাবতীয় কার্যক্রম গুছিয়ে আনা হয়েছে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে টিকা ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন করে এসব কার্যক্রম চূড়ান্ত করা হয়েছে। জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা পর্যায়ে ইউএনওদের প্রধান করে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রথম ধাপে মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতাল ও ৫ উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে টিকাদান বুথ স্থাপন করে টিকা দেওয়া হবে। প্রতিটি বুথে ছয়জন প্রশিক্ষিত ব্যক্তি এই টিকা প্রয়োগের দায়িত্ব পালন করবেন। এর মধ্যে দুজন প্রশিক্ষিত টিকাকর্মী এবং চারজন স্বেচ্ছাসেবক থাকবেন।

এ দিকে মুন্সিগঞ্জ জেলায় এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৪২৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে মারা গেছেন ৬৯ জন।

দৈনিক অধিকার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.