দুর্ঘটনা না ঘটলে সমাধান হবে না

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ইমামপুরে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা একটি সেতুর ওপর দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন। এতে যেকোনো মুহূর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

সম্প্রতি সরেজমিনে দেখা গেছে, ইমামপুর ইউনিয়নের রসুলপুর মাদ্রাসা-সংলগ্ন খালের ওপর কোনোরকমে টিকে আছে জরাজীর্ণ সেতুটি। এর পূর্ব প্রান্তে ‘সাবধান! ঝুঁকিপূর্ণ ব্রিজ’ লেখা সংবলিত সাইনবোর্ড ঝুলিয়েছে এলজিইডি। সেতুটির স্তম্ভসহ বিভিন্ন অংশ ক্ষয় হয়ে ভেতরের রড বেরিয়ে গেছে। ভেঙে গেছে দুই পাশের রেলিং। এরপরও এটির ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে চলছে ছোট-বড় অনেক যানবাহন।

সেতু দিয়ে যাওয়ার সময় ট্রাকচালক মঞ্জুরুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, ষোলআনি তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পে যাওয়ার একমাত্র পথ হওয়ায় ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত এই সেতুর ওপর দিয়ে যেতে হচ্ছে। কিন্তু যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

সেতু এলাকার বাসিন্দা দীপক শীল (২৮) বলেন, সেতুর ওপরে ভারী যানবাহন উঠলেই দুলতে থাকে। এই সেতু দিয়ে ১০ চাকার ট্রাকও চলাচল করে। এলজিইডি ভারী যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দিলেও কেউ সেটা মানছে না। সতর্কবার্তা দিয়েই তারা দায় শেষ করছে। দুর্ঘটনা না ঘটলে সমাধান হবে বলে মনে হয় না।

সেতু এলাকার আরেক বাসিন্দা বেলাল হোসেন (৫০) বলেন, আমরা দিনরাত দেখি ওই সেতু দিয়ে কী পরিমাণ যানবাহন চলাচল করে। সব সময় আতঙ্কের মধ্যে থাকি, কখন যে দুর্ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে ইমামপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মনসুর আহমেদ খান জিন্নাহ ঢাকা পোস্টকে বলেন, রসুলপুর, ষোলআনি, দৌলতপুর, আন্ধারমানিক, কালীপুড়া, ভাগাইয়াকান্দী, করিমখাসহ অন্তত ১০টি গ্রামের মানুষ এই সেতু দিয়ে জেলা শহরে যাতায়াত করেন। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ সেতুটির অবস্থা এখন বেহাল। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সেতুটির বিষয়ে জানানো হয়েছে। কিন্তু কোনো তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না।

ব.ম শামীম/ঢাকা পোষ্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.