শ্রীনগরে আটককৃত গাঁজা ছিনিয়ে নিলো মাদক ব্যবসায়ীরা

শ্রীনগরে এলাকাবাসীর আটককৃত প্রায় ৪ কেজি গাঁজা ভয়ভীতি দেখিয়ে ছিনিয়ে নিলো মাদক ব্যবসায়ীরা। গত মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার ষোলঘর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের পুরহিত পাড়ায় এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, পুরহিত পাড়া আলী আকবরের বাড়ির পাশে একটি বসতঘরের পাটাটনের নিচে কাগজে মোড়ানো প্যাকেট দেখতে পায় রিফাত নামে এক যুবক। পরে রিফাতসহ রনি, মেহেদী, অন্তর, ইমরান ও আলী ইসলামসহ কয়েকজন প্যাকেট খুলে দেখতে পায় এতে গাঁজা রয়েছে। বিষয়টি জানাজানি হলে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে হাজির হয় ওই এলাকার জজ বাড়ির সদানন্দ দাসের ছেলে সাধন দাস (৩৬)। সাধন দাস দাবি করে প্যাকেটগুলো তার। এসময় সাধনের সহযোগী একই এলাকার সাবেক ইউপি সদস্য মরহুম সিদ্দিকের দুই ছেলে শাহাদাত ও লাইউম ভয়ভীতি ও হুমকি ধমকি দিয়ে গাঁজা ছিনিয়ে নেয়।

মো. আওয়াল, নজরুল, সালাউদ্দিন, শফিকুলসহ অনেকেই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রিফাতসহ তার বন্ধুরা বিয়ের অনুষ্ঠানে যায়। ওই বাড়ির পাশে গাঁজার প্যাকেটগুলো আটক করে তারা। তার কিছুক্ষণ পরেই সাধনসহ তার সহযোগীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে গাঁজা নিয়ে যায়। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আীকে জানানো হলেও কোন কাজে আসেনি। তারা আরো বলেন, সন্ধ্যার পরেই ষোলঘরের সমসাবাদ ও কালীবাড়ি ল ঘাটে মাদক কারবারি ও সেবনকারীদের আনাগোনা বেড়ে যায়। তাদের ভয়ে স্থানীয়রা সেখান দিয়ে যেতেও সাহস পায়না। ষোলঘর মাদকমুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আলীর কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এঘটনায় আমাকে তারা ফোন করেছিল। আমি অসুস্থ ছিলাম। আমি বলেছি আপনার যে ব্যবস্থা নেওয়ার নেন। স্থানীয় যুবক মো. রিফাত বলেন, তারা আমাকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে, গাঁজার বিষয়ে যেন মুখ না খুলি।

সাধন দাস, লাইউম ও শাহাদাতের কাছে এবিষয়ে জানার চেষ্টা করা হলেও তাদের মোবাইল নম্বরগুলো বন্ধ পাওয়া গেছে।

এব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা জানান, বিষয়টি আমি অবগত নই। তবে দ্রুত পুলিশ পাঠিয়ে ব্যবস্থা নেবো।

গ্রামনগর বার্তা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.